ফিরে দেখা ২০২১: ভাইরাল ‘কাঁচা বাদাম’ থেকে ‘জুম কলে চুমু খাওয়ার’ ভিডিও

21

২০২১ সালে ধীরে ধীরে করোনার প্রভাব থেকে মুক্তি পেতে শুরু করেছেন মানুষ। করোনার কাঁটা কখনও বিনোদনে প্রভাব ফেলতে পারে! এ বছরও বিভিন্ন সময়, বিভিন্ন মাধ্যমে বেশ কিছু গানের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। বলা যায় রীতিমতো ট্রেন্ড করেছে সেই ভিডিয়োগুলি।

ইয়োহানির ‘মানিকে মাগি হিতে’ থেকে ‘ বাচপান কা পেয়ার’, পাকিস্তানের তরুণী দানানীর মোবিনের ‘পাওরি হোরিহি হ্যায়’ ঝড় তুলেছে নেটপাড়ায়। ফিরে দেখা যাক, ২০২১ সালের ভাইরাল ভিডিয়োগুলো-- 

বাচপান কা পেয়ার-

‘জানে মেরি জানেমান বাচপান কা পেয়ার..’ গানটি গেয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল সহদেব নামে এক শিশু। ছত্তিশগড়ের সুকমা এলাকার ছিনগড় ব্লকের বাসিন্দা ওই শিশুটি। খালি গলায় গেয়েছিল ‘বাচপান কা পেয়ার’। সেই গান সাড়া ফেলেছিল নেটমাধ্যমে।

কাঁচা বাদাম-

‘কাঁচা বাদাম’ গান এখনও শোনেনি এমন বাঙালি এ রাজ্যে খুঁজে পাওয়া দায়। বীরভূমের ভুবন বাদ্যকর বাদাম বিক্রির গান বেঁধে সুপার ভাইরাল। ‘বাদাম বাদাম দাদা কাঁচা বাদাম’ এই গান শুনে ফেলেছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ।

মানিকে মাগে হিথে-

শ্রীলঙ্কার জনপ্রিয় গায়িকা ইয়োহানি দ্য সিলভা। যাঁর গলায় শোনা গিয়েছিল ‘মানিকে মাগে হিথে’। শ্রীলঙ্কার অন্যতম জনপ্রিয় গায়িকা তিনি। ইউটিউবার হিসেবে নিজের কেরিয়ার শুরু করেছিলেন। ‘মানিকে মাগে হিথে’ গানটি সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল। ইতিমধ্যেই বলিউডেও অভিষেক হয়েছে ইয়োহানির।

পাউরি হো রহি হ্যায়-

সোশ্যাল মিডিয়ায় কখন যে কীভাবে কেউ ভাইরাল হবেন, ধরতে পারবেন না। এমনই হয়েছে পাকিস্তানের বছর ১৯-এর ব্লগার, ইনস্টাগ্রামার দানানীর মোবীনের ক্ষেত্রে। সেলেব থেকে পুলিশ দফতর, সবার মুখেই ছিল ‘পাউরি হো রহি হ্যায়।’ পাকিস্তানের তরুণী দানানীর মোবিন একটি ভিডিয়োতে বলেছিলেন ‘ইয়ে হামারি কার হ্যায়, অউর ইয়ে হাম হ্যায়। অউর ইয়ে হামারি পাউরি হো রহি হ্যায়’।

ইন্দিরানগর কা গুন্ডা-

চলতি বছর এপ্রিলের দিকে রাহুলের একটি বিজ্ঞাপন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। সেই ভিডিয়োয় যানজটে আটকে থাকা রাহুলকে রেগে যেতে দেখা গিয়েছিল। ভেঙে দিয়েছিলেন গাড়ির কাঁচ। ঝগড়া করেছিলেন। নিজেকে ‘ইন্দিরানগর কা গুন্ডা’ বলেই পরিচয় দিয়েছেন রাহুল। ২০২১ সালে তাঁকে একেবারে গুন্ডাদের মতো দেখা গিয়েছে।

করোনায় ওষুধে কাজ হবে না, পেগে কাজ হবে-

দীর্ঘদিন লকডাউনের জেরে দিল্লিতে মদের দোকান বন্ধ ছিল। লকডাউন উঠতেই মদের দোকান খোলা মাত্রই ভিড় জমিয়েছিলেন সুরাপ্রেমীরা। সেখানেই সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল এক মাঝ-বয়সী মহিলার। যিনি সংবাদমাধ্যমের সামনে প্রকাশ্যে বলেছিলেন, তিনি মদ কিনতে এসেছেন। কারণ ওষুধ নয় করোনায় কাজ করবে এই মদই।

জুম কলে স্বামীকে চুমুর চেষ্টা স্ত্রীর-

চলতি বছর হর্ষ মেহেরা টুইটারে একটি মজার ভিডিয়ো শেয়ার করেছিলেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে জুমকলের মাঝে স্বামীকে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করছেন স্ত্রী। জুম কলে স্বামীর মিটিংয়ের মাঝে ঘটে এই ঘটনা। নেটমাধ্যমে হু হু করে ভাইরাল হয়েছিল সেই ভিডিয়ো।

সুত্র-হিন্দুস্তান টাইমস

আমারসংবাদ/এডি