Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

মদনে বিএনপির সঙ্গে পুলিশ-আ.লীগের সংঘর্ষ, ওসিসহ আহত ১৫

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

আগস্ট ৩১, ২০২২, ০৫:৫৩ পিএম


মদনে বিএনপির সঙ্গে পুলিশ-আ.লীগের সংঘর্ষ, ওসিসহ আহত ১৫

দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নেত্রকোনার মদন উপজেলায় চানগাঁও ইউনিয়নে বিক্ষোভ ও সমাবেশে বিএনপির সাথে পুলিশ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনা ঘটে। এতে থানার ওসি ও দুই পুলিশ সদস্যসহ দুই দলের অনেকে আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে আছেন মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম, কনস্টেবল আজিজুল ও খুরশেদ। স্থানীয় আ.লীগ নেতা মো. রুকন, যুবলীগ নেতা বুলবুল, ছাত্রলীগ নেতা শরিফুল ইসলাম, রুহুল আমিন, আনোয়ার ও সুহান।

অপরদিকে বিএনপির আহতরা হলো- ছাত্রদলের অন্তর, যুবদলের রবিউল, আশরাফুল ও নুরুল হক এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের আমিন। তবে বিএনপির আহতরা বিভিন্নস্থানে প্রাথমিক চিকিৎসা নিলেও অন্যান্যরা মদন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নেন বলে জানা গেছে।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও চানগাঁও ইউপির চেয়ারম্যান মো. নুরুল আলম তালুকদার জানান, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ইউনিয়ন পর্যায়ের কর্মসূচীতে বিক্ষোভ মিছিল শেষে সমাবেশ করতে ছিল বিএনপি। সমাবেশে বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে আ.লীগ ও পুলিশ মিলে অতর্কিতভাবে হামলা করে বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর। এতে বিএনপির অনেকে আহত হয়েছে। আতরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেন।

উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার খান একলাছ জানান, বিএনপির সমাবেশের সন্নিকটে আ.লীগের প্রোগ্রাম ছিল। এখানে তারা (বিএনপি) আসার চেষ্টা করে। প্রথমে পুলিশকে ধাওয়া করে। তা শুনে আমাদের লোকজন সেখানে গেলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার একপর্যায়ে সংঘর্ষে আমাদের পাঁচ-ছয়জন আহত হয়।

তিনি আরো জানান, বিএনপির লোকজন গত কয়েকদিন ধরে এ ধরনের কর্মসূচী চালিয়ে যাচ্ছে।

মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম বলেন, বিএনপি বিক্ষোভ মিছিল ও আওয়ামী লীগ প্রতিবাদ করতে ছিল। উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে বিএনপির লোকজন আ.লীগের কয়েকজন এবং আমি ও দুই পুলিশ সদস্যকে মেরে আহত করে চলে গেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।

এসএম

Link copied!