আন্দোলন কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে

যৌক্তিক পরিণতিতে  না পৌঁছা পর্যন্ত আন্দোলন কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, 'এ বছর ৫ জানুয়ারি কর্মসূচির (সমাবেশ) আগের রাতে বিভিন্নভাবে এই কার্যালয়ে আমাকে অবরুদ্ধ করা হয়। পুলিশ বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দেয়। আমি বিকেলে বের হতে চাইলে বাধা দেওয়া হয়। দফায় দফায় পিপার স্প্রে (মরিচের স্প্রে) করা হয়। উচ্চ আদালত এই স্প্রে নিষিদ্ধ করলেও তা আমাদের ওপরে ব্যবহার করা হয়।'

'সংবাদ মাধ্যমকে ভয় দেখিয়ে বিরোধী দলের হিসেবে প্রচারযন্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে। মানুষের সব অধিকার তারা কেড়ে নিয়েছে। তাই আমরা আন্দোলনের ডাক দিয়েছি। জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের সেই আন্দোলন চলছে। একের পর এক উস্কানিমূলক কাজ করা হচ্ছে,' যোগ করেন খালেদা জিয়া।

বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, 'আন্দোলনে দেশবাসীর কষ্টের কথা আমরা জানি ও বুঝি। কেবল ক্ষমতসীনদের কোনা বোধোদয় নেই। ক্ষমতায় টিকে থাকাটাই তাদের কাছে বড়।'

বিএনপি নেত্রী আরো বলেন, 'প্রতিটি জনপদ আজ স্বজন হারার কান্নায় ভারি। সবাই আতঙ্কিত। শত শত তরুণকে আটক করে গুলি ও নির্যাতনে পঙ্গু করে দেওয়া হয়েছে। গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করে সবাই যে নির্যাতন সহ্য করেছেন সেজন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। যারা নিহত আহত গুম হয়েছেন তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই।' বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'দিন পরিবর্তন হলে আমরা আপনাদের পাশে দাঁড়াবো। দেশের পরিস্থিতিতে যেসব বন্ধু রাষ্ট্র, সংগঠন, গণমাধ্যম উদ্বেগ প্রকাশ করে সংলাপের মাধ্যমে সমাধানের কথা বলেছেন তাদের ধন্যবাদ জানাই।'