‘বিনা চিকিৎসায় খালেদা মারা গেলে জনগণ মেনে নেবে না’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, চিকিৎসার অভাবে খালেদা জিয়ার সাথে খারাপ কোনো কিছু ঘটলে গণঅভ্যুত্থান হবে। তিনি বলেন, ‘দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রীকে যদি আপনারা (সরকার) বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলেন তাহলে জনগণ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করবে না।’

শনিবার (২৭ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ২০ দলীয় জোটের শরিক দল জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার দাবি জানিয়ে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়ার বিপক্ষে সরকারের কোনো ষড়যন্ত্র জনগণ মেনে নেবে না যেমন অতীতে তারা ‘আগরতলা ষড়যন্ত্র’ মামলা মেনে নেয়নি। ‘গণঅভ্যুত্থান হবে এবং গণতান্ত্রিক উপায়ে এ আন্দোলন পরিচালনা করা হবে।’

শান্তিপূর্ণ উপায়ে বিএনপির বর্তমান আন্দোলন আরও জোরদার করতে জনগণকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় হাসপাতালের চিকিৎসকরা বলছেন খালেদা জিয়ার কিছু জটিলতা রয়েছে যা দেশে চিকিৎসা করা যাবে না। বর্তমান পরিস্থিতিতে চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে পাঠানোয় আইনি কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্ট আইনজীবীরা।

তিনি বলেন, কিন্তু সরকার যারা জনগণের ভোট ছাড়া ক্ষমতায় তারা আমাদের নেত্রীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যেতে দিচ্ছেন না। যেখানি আইনি বাধা নেই সেখানে মানবতা প্রয়োজন হয়। তাকে (বিদেশে যেতে না দেয়ার) যুক্তি কী?

৭৬ বছর বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া লিভার, হৃদযন্ত্র ও কিডনিসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যগত জটিলতা নিয়ে ১৩ নভেম্বর থেকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আমারসংবাদ/এমএস