রাষ্ট্রপতির সংলাপ: ইসলামিক ফ্রন্টের ৫ ও বাংলাদেশ ন্যাপের ৩ প্রস্তাব

ছবি: সংগৃহীত

নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে চলমান সংলাপে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) -এর নেতারা। 

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে সংলাপে অংশ নিয়ে দল দুটি যথাক্রমে ৫ ও ৩ দফা প্রস্তাব দেয়।

প্রথমে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেয় ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ। সন্ধ্যায় দলটির চেয়ারম্যান আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ মোজাদ্দেদীর নেতৃত্বে ৮ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল বঙ্গভবনের দরবার হলে অনুষ্ঠিত আলোচনায় অংশ নেয়। তারা নির্বাচনী আইন প্রণয়নসহ পাঁচ দফা দাবি পেশ করে।

দলটির নেতারা বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে জনমতের প্রতিফলন ঘটে। তাঁরা সংবিধান মোতাবেক একটি স্বচ্ছ, জবাবদিহিমূলক, স্বয়ংসম্পূর্ণ ও স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রস্তাব করেন। এ ছাড়া তাঁরা নির্বাচনের সার্বিক কর্মকাণ্ড সরকার ও নির্বাহী বিভাগের আওতামুক্ত রাখা এবং নির্বাচন কমিশনের সকল নির্দেশনা রেডিও টেলিভিশনসহ সকল গণমাধ্যমে প্রচার বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব দেন। এর পর বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গনির নেতৃত্বে আট সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল আলোচনায় অংশ নেয়। প্রতিনিধি দল নির্বাচনী আইন প্রণয়নসহ তিন দফা প্রস্তাব পেশ করেন। তাঁরা একটি আধুনিক নির্বাচন ব্যবস্থা বা পদ্ধতি গ্রহণের প্রস্তাব করেন। দলটির নেতারা প্রতিটি নির্বাচনী কেন্দ্রে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট গ্রহণ নিশ্চিতের জন্য আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারেরও প্রস্তাব করেন। তাঁরা বলেন, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন ছাড়া গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয়।

রাষ্ট্রপতি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাহী বিভাগসহ দলমত-নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা একান্ত অপরিহার্য। তিনি বলেন, এ জন্য জনগণের মানসিকতারও পরিবর্তন ঘটাতে হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেসসচিব মো. জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান প্রমুখ।  

আমারসংবাদ/এমএস