Amar Sangbad
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

কাঁদলেন রচনা

বিনোদন ডেস্ক

ডিসেম্বর ৬, ২০২১, ০৮:০০ পিএম


কাঁদলেন রচনা

গত ১৫ নভেম্বর বাবা হারান কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জি। এরপর শোকস্তব্ধ হয়ে যান নায়িকা। বাবার চলে যাওয়ার শোক কাটিয়ে উঠতে না পেরে কিছুদিন ‘দিদি নাম্বার-১’ উপস্থাপনা থেকেও দূরে ছিলেন তিনি। বাবার পরলৌকিক কাজ সেরে ২৭ নভেম্বর থেকে আবার ‘দিদি নাম্বর-১’এর শুটিং করেছেন রচনা— যা সমপ্রচারিত হয়েছিল ২৯ নভেম্বর। 

শুটিংয়ে ফিরে ফেসবুক লাইভে রচনা জানিয়েছিলেন : আপনারা সবাই জানেন এতদিন আমি কেন আসতে পারিনি। অনেক দিন পর আবার সেটে ফিরলাম। ঘরে ফিরে আসার মতোই। আশা করছি আবার সবাইকে আনন্দ দিতে পারবো। এরপর নিজের ‘রচনাস ক্রিয়েশন’-এর বিয়ে স্পেশাল কালেকশন নিয়ে লাইভ করেন অভিনেত্রী। আর সেখানেই স্পষ্ট ফুটে ওঠে বাবাকে হারানোর শোক।

মাসখানেক হতে চললেও রচনার কথায় বিষাদের সুর ছিল স্পষ্ট। ক্ষমা চেয়ে নিয়ে জানান, এতদিন আমি সবকিছু থেকে দূরে ছিলাম। শুটিংও বন্ধ রেখেছিলাম। লাইভে তো আসছিলামই না। 

আপনারা জানেন, আমি আমার বাবাকে হারিয়েছি। বাবাকে তো খুব মিস করি। 

এর আগে যতবার লাইভ করেছি, বাবা পাশে থাকতেন। বাবা আমাকে বলতেন, ভালো করে করবে। যেটা করছো, মন দিয়ে করবে। বাবা চলে যাওয়া আমার কাছে শক ছিল। রচনা বন্দ্যোপাধ্যায় হওয়া, কাজ করার পেছনেও আমার বাবা। 

সব সময় আমাকে অনুপ্রাণিত করতেন। যখন আমি ভাবলাম রচনাস ক্রিয়েশন শুরু করবো, তখনও বাবাই আমাকে অনুপ্রেরণা দিয়েছিল। বাবা আমার ছিল একটা পিলারের মতো। তাই আগের লাইভে দেয়া নতুন নতুন শাড়ির কালেকশন নিয়ে আসবো, এ কথা রাখতে পারিনি। 

কিন্তু পরে ভাবলাম, বাবা তো এরকমটা কখনও চায়নি, যে আমি সব ছেড়ে ঘরে বসে থাকবো। তাই ধীরে ধীরে আবার ফিরলাম কাজে। লাইভের মাঝখানেই রচনা কেঁদে জানান, বাবাই ছিলেন তার জীবনের সব কাজের অনুপ্রেরণা। তাদের সম্পর্ক ছিল বন্ধুর মতো। তাইতো পিতৃহারা হয়ে প্রথমটা দিশাহারা হয়ে পড়েছিলেন তিনি।