রোজিনার মুক্তির দাবিতে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের অবস্থান কর্মসূচি

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ও কারাবন্দী রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি, এবং তাকে নির্যাতনকারী কর্মকর্তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন সিলেটের সাংবাদিক নেতারা। তারা রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে করা সাজানো মামলা প্রত্যাহারও চেয়েছেন।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সেবা বিভাগে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকে রেখে নির্যাতন, সাজানো মামলা দিয়ে জেলে পাঠানোর প্রতিবাদ ও তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে সিলেট জেলা প্রেসক্লাব আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানানো হয়।

বুধবার (১৯ মে) বিকেলে সিলেটের সিভিল সার্জন অফিসের সামনে ঘণ্টাব্যাপী চলা অবস্থান কর্মসূচিতে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আল আজাদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদের সঞ্চালনায় শুরুতে কর্মসূচির বিস্তারিত তুলে ধরে বক্তব্য দেন সংগঠনের সহ-সভাপতি মঈন উদ্দিন।

কর্মসূচিতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন সিলেট সাংবাদিক ইউনিয়নের আহ্বায়ক লিয়াকত শাহ ফরিদী, সাংবাদিক নেতা রেজওয়ান আহমদ, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি এস. সুটন সিংহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম চৌধুরী নবেল, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফুল আলম নাসির, ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন-ইমজা সিলেটের সদস্য, চ্যানেল ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার গোলজার আহমদ ও এটিএন বাংলা ইউকে সিলেট প্রতিনিধি শফিকুল ইসলাম শফি প্রমূখ।

বক্তারা বলেন, রোজিনা ইসলাম স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনিয়ম-দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করায় আজ কারান্তরিণ হতে হয়েছে। স্বাধীন ও অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা আজ জলাঞ্জলির পথে। দুর্নীতিবাজদের বিচার না করে একজন অনুসন্ধানী প্রতিবেদককে চুরির মামলা দিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করা হয়েছে।

বক্তারা বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়ে রোজিনা ইসলামের করা সকল প্রতিবেদনকে গুরুত্ব দিয়ে দুর্নীতিতে জড়িত কর্মকর্তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। অবিলম্বে রোজিনা ইসলামকে মুক্তি না দিলে সিলেটের সাংবাদিকরা কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবেন বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সাংবাদিক মোহাম্মদ মহসীন, ফয়সল আহমদ বাবলু, মতিউল বারী চৌধুরী, উজ্জ্বল মেহেদী, মামুন হাসান, শাব্বীর আহমদ ফয়েজ, সাদিকুর রহমান সাকী, এ এইচ আরিফ, সৈয়দ রাসেল, সুমনকুমার দাশ, আনিস মাহমুদ, সজল ঘোষ, এসএম রফিকুল ইসলাম সুজন, মোস্তাফিজুর রহমান রোমান, রবি কিরণ সিংহ (মাইস্নাম রাজেশ), শংকর দাস, কাইয়ুম আল রনি, মো. ওলিউর রহমান, মো. নুরুল হক শিপু, আশরাফ চৌধুরী রাজু, মো. শাহীন আহমদ, শেখ মো. লুৎফুর রহমান, মো. সুলতান আহমদ, ইয়াহ্ইয়া মারুফ, রাশেদুল হোসেন সোয়েব, মো. একরাম হোসেন, রাহুল তালুকদার পাপ্পু, দিব্য জ্যোতি সী, মিঠু দাস জয়, মামুন হোসেন, ভবরঞ্জন মৈত্র বাপ্পা, আতিকুর রহমান নগরী, মৃণাল কান্তি দাস, মোখলেছুর রহমান, সোহাগ আহমদ প্রমূখ।

আমারসংবাদ/কেএস