Amar Sangbad
ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

ট্রাকের ভারে ভেঙে পড়লো ব্রিজ   

বরিশাল প্রতিনিধি:

জানুয়ারি ২৮, ২০২২, ০৪:৩৫ পিএম


ট্রাকের ভারে ভেঙে পড়লো ব্রিজ   

বরিশালের উজিরপুরে অতি ঝুঁকিপূর্ণ আয়রন ব্রিজে এস্কেভেটরবাহী ট্রাক ওঠায় ব্রিজটি ভেঙে খালে পড়েছে। সর্বশেষ রাত ৮টা পর্যন্ত দুর্ঘটনায় পতিত হওয়া যানবাহন দুটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) ভোর রাতে উপজেলার বরাকোঠা ইউনিয়নের ডাবেরকুল বাজার সংলগ্ন ডাবেরকুল-ধামুড়া সড়কে এই ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) উজিরপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো: আহিমুর রশিদ বলেন, ১৯৯৯ সালে ডাবেরকুল-ধামুরা খালের ওপর আয়রন সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল। ২০১৮ সালে আয়রন ব্রিজটিকে অতি ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেখানে স্থানীয় সংসদ সদস্যের ডিউ লেটারে একটি গার্ডার ব্রিজ প্রকল্প পাসের চেষ্টা চলছিল। এজন্য সম্ভবত সংস্কার হয়নি।

এই কর্মকর্তা বলেন, আয়রন ব্রিজে সাধারণত হালকা যানবাহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়। নতুন আয়রন ব্রিজেই সর্বোচ্চ দেড় টনের গাড়ি চলাচল করতে পারে। এর বেশি হলে ভেঙে পরবে। কিন্তু ডাবেরকুল-ধামুড়া সড়কের অতিঝুঁকিপূর্ণ সেতুতে এস্কেভেটর বহনকারী একটি ট্রাক ওঠে যার ওজন কমপক্ষে দশ মেট্রিকটন হবে। নির্দেশনা অমান্য করে সেতুতে ওঠায় সেতুটি ভেঙে পড়েছে।

বড়াকোঠা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শহীদুল ইসলাম মৃধা বলেন, ব্রিজটি ভেঙে পড়ায় সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য বাঁশের সাঁকো করে দেওয়া হয়েছে। তারপরও ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় লস্করপুর, গাজিরপাড়, নরসিংহা, খাটিয়ালপাড়া, বড়াকেআঠা, দক্ষিণ ধামুড়াসহ কমপক্ষে ১০ গ্রামের মানুষের স্বাভাবিক চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যহত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণতি বিশ্বাস জানিয়েছেন, ব্রিজটি মেরামত করে মানুষের চলাচলের ব্যবস্থা করার জন্য জরুরী নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আশা করছি দুই একদিনে সেতুটি মেরামত বা বিকল্প একটি সেতু নির্মাণ শুরু করা হবে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) বরিশাল কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী শরীফ মো. জামাল উদ্দিন জানিয়েছেন, হালকা যানবাহনের সহনশীল সেতুতে একটি এস্কেভেটর নিয়ে ট্রাক নিয়ম অমান্য করে উঠেছে। আমি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে কথা বলেছি। যেন সেতু ভাঙার কারণে ওই পরিবহন মালিককে জরিমানা করা হয় নয়তো মামলা করা হয়। কারণ সরকারি আদেশ অমান্য করে গাড়িটি সেতু ভেঙে জনসাধারণের মালামাল নষ্ট করেছে।

এই কর্মকর্তা আরো বলেন, ওই সড়কে মোট ৭টি গার্ডার সেতু নির্মাণ প্রকল্পের কাজ প্রক্রিয়াধীন। সেতুটি ভেঙে না পড়লেও এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে টেন্ডার হতো। তার আগেই ভেঙে পড়লো। তবে এই পরিস্থিতিতে মানুষের চলাচলের জন্য ছোট একটি সেতু করে দেওয়া হবে।

আমারসংবাদ/এমএস