Amar Sangbad
ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

বিদ্রোহী প্রার্থীরা কোনঠাসা, মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নৌকা

জয়পুরহাট প্রতিনিধি:  

জানুয়ারি ২৮, ২০২২, ০৫:১৫ পিএম


বিদ্রোহী প্রার্থীরা কোনঠাসা, মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নৌকা

আসন্ন ৭ম ধাপের ইউনিয় পরিষদ নির্বাচনে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার ৭নং কুসুম্বা ও ৮নং আওলাই ইউনিয়ন পরিষদ নিবার্চনে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভোটারের দ্বারে দ্বারে গিয়ে উন্নয়নের প্রুতিশ্রুতি দিয়ে ভোট চাচ্ছেন। ইউপি নিবার্চনে উপজেলার দুটি ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থীদে জয়লাভ করাতে জেলা-উপজেলা আ.লীগের সর্বস্তরের নেতাককর্মীরা মিছিল, মিটিংয়ে অংশগ্রহণের পাশাপাশি ভোটারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন। ভোটারদের সাড়াও পাচ্ছেন নৌকার কর্মী-সমর্থকরা।

অপরদিকে, এই ইউনিয় দুটিতে এক প্রকারের কোনঠাসা অবস্থায় রয়েছে আ.লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। আ.লীগ বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকদের হুমকি ধুমকি ও পোস্টার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগও পাওয়া গেছে। বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্রদের মিছিল, মিটিং ও পথসভা চোখে না পরার মত। দেখা যাচ্ছে না তাদের কর্মীরা সমর্থকদের।

উপজেলার ৭নং কুসুম্বা ও ৮নং আওলাই ইউপির বিভিন্ন গ্রামের ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কুসুম্বা ইউনিয়ন জামায়াত-বিএনপি সমর্থিত এলাকা হিসেবে চিহ্নিত হলেও এবারের নিবার্চনে এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে নৌকার প্রার্থীর জিহাদ মন্ডলকে ভোট দিয়ে নিবার্চিত করতে চান। তবে আওলাই ইউপিতে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থীদের এস এম ইব্রাহীম হোসাইনের বিরুদ্ধে আ.লীগ বিদ্রোহী প্রার্থীদের জামায়াতের প্রার্থীর ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সাত জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে নিবার্চনে অংশগ্রহণ করায় চিন্তিত এলাকার ভোটাররা। যদিও আ.লীগের নেতাকর্মীরা বলছেন- এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে ভোটাররা নৌকাকে নিবার্চিত করবেন।

৭নং কুসুম্বা ইউপির আ.লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মুক্তার হোসেন মন্ডল বলেন, আমার বিরোধী পক্ষের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় আমার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে। কোথাও কোথাও প্রচরণায় বাঁধাও দিচ্ছেন। কর্মী-সমর্থকদের হুমকি দিচ্ছেন।

নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর জিহাদ মন্ডল বলেন, আমি চেয়াম্যান না হয়েও বিগত ৫ বছর যাবত এই ইউনিয়নের মানুষের সুখে-দুখে তাদের পাশে থেকেছি। এলাকার উন্নয়নে স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির রাস্তাঘাট, ব্রিজ কালভার্টসহ বিভিন্ন ধরনের উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। যা আজ দৃশ্যমান। একারণে দল মত নির্বিশেষে এলাকার মানুষ এবার নৌকার পক্ষে কাজ করছেন। আমার প্রতিপক্ষ প্রার্থী ভোটারের সাড়া না পেয়ে বিভিন্ন প্রকারের গুজব ছড়াচ্ছেন।

৮নং আওলাই ইউপির জামায়াত সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আজিজুল হক বলেন, বুধবার (২৬ জানুয়ারি) বিকেল পাঁচটার দিকে আমার নিবার্চনী এলাকার পাগলা বাজার অবস্থানকালে আমার মোটরসাইকেল চালককে কিছু বহিরাগত ছেলে চড়-থাপ্পড় মারে এবং আমাকে আঁড়ালে ডাকে। আমি তাদের কথায় আড়ালে না গেলে সবার সামনে আমাকে এলাকা ছাড়তে বলে চলে যায়। আমি তাদের চিনতে পারিনি।

আ.লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী একরামুল হক চৌধুরী তাওহীদ বলেন, আমার প্রতিপক্ষর কর্মী-সমর্থকরা গোড়না বাজারে লাঠি দিয়ে পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে। কর্মী-সমর্থকদের হুমকি ধুমকি দিচ্ছেন। প্রচার-প্রচারণায় বাঁধা সৃষ্টি করছেন। এসব বিষয়ে ইতিমধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মকতার্দের অবগত করেছি।

৮নং আওলাই ইউপির নৌকার প্রার্থী এস এম ইব্রাহিম হোসাইন বলেন, দলমত নির্বিশেষে এলাকার মানুষ এবার নৌকার পক্ষে কাজ করছেন। দলীয় নেতাকর্মীরা পাশাপাশি এলাকার সাধারণ ভোটাররা আমার সঙ্গে আছেন। নৌকার এমন জনসমর্থন দেখে প্রতিপক্ষরা মিথ্যা গুজব রটাচ্ছেন।

উপজেলা নিবার্চন কর্মকতা মো.শহিদুল ইসলাম বলেন, এই দুটি ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থীদের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলার বিষয়ে মৌখিক ভাবে অভিযোগ পেলেও লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি।

আমারসংবাদ/এমএস