লিটনের রানের ডিসকাউন্টে ১০ কেজি মধু বিক্রি!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসরে টাইগার দলের অন্যতম ওপেনার লিটন দাসের ব্যর্থতায় মোড়ানো ইনিংসগুলো নিয়ে তুমুল সমালোচনা হয়েছে। এমনকি কত কম রানে আউট হতে পারেন তা নিয়ে চলেছে হাস্যরসাত্মক স্ট্যাটাস, মিম। তবে এই ট্রেন্ডে সীমানা অতিক্রম করে ফেলেছে দেশের কয়েকটি ই-কমার্সের ফেসবুক পেজ। তার রান সংখ্যার ওপরে ডিসকাউন্ট ঘোষণা দেয় তারা।

এর মধ্যে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার ম্যাচে লিটন দাসের করা রানের ডিসকাউন্টে ১০ কেজি মধু বিক্রি করেছে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের একটি অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। উপজেলার নীলডুমুর.কম নামে ওই প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে বিক্রি হওয়া মধু ক্রেতাদের ডেলিভারি দিয়েছে। 

নীলডুমুর.কমের পরিচালক আহসান হাবিব বলেন, অনলাইনের মাধ্যমে যখন কেউ কেউ ক্রিকেটার লিটন দাসকে উৎসাহিত করতে ডিসকাউন্ট ঘোষণা করে তখন আমিও ডিসকাউন্ট ঘোষণা করি যে, আজ লিটন দাস যত রান করবের তত পার্সেন্ট ছাড় থাকবে বরুই ফুলের মধুতে। এরপর লিটন দাস ৪৪ রান করেন। তখন আটজন ক্রেতা ১০ কেজি মধু অর্ডার করেন। 

তিনি বলেন, বরুই ফুলের মধু প্রতি কেজি বিক্রি করি ৬৫০ টাকা। ৪৪ পার্সেন্ট ডিসকাউন্টে ৩৬৪ টাকা করে এই মধু আমি আজ শনিবার (৩০ অক্টোবর) তাদের কাছে কুরিয়ারযোগে পাঠিয়েছি। এতে আমার কিছুটা লোকসানও হয়েছে। আমি রেখেছি, সেই সঙ্গে অফারটিও ক্লোজ করে দিয়েছি। মূলত ক্রিকেটের প্রতি ভালোবাসা থেকেই এটা করেছি। আমরা চাই লিটন দাসসহ দলের সব ক্রিকেটাররা ভালো খেলুক।

এছাড়াও বই বিক্রয়ের একটি পেজ ঘোষণা দিয়েছিল, আজকে (শুক্রবার) লিটন দাস যত রান করবে প্রকাশনী থেকে তত পারসেন্ট ছাড়। 

এদিন শিক্ষাবিষয়ক একটি পেজ ঘোষণা দিয়েছিল, আজকে লিটন দাস যত রান করবে আমাদের প্রতিষ্ঠানের কোর্সে তত পার্সেন্ট ছাড় ! 

এদিকে লিটনের মাঠের পারফরম্যান্স নিয়ে এমন বিজ্ঞাপনী প্রচারণায় মনক্ষুণ্ণ হয়েছেন তার স্ত্রী দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিতা। 

শুক্রবার রাতে ফেসবুকে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে একটি স্ট্যাটাস তিনি লিখেছেন, ‘ব্যাপারটা হল, প্রতিবার কেউ ক্যাচ মিস করলে বা খারাপ স্কোর করলে এটা আসল সমস্যা নয়। কখনও কখনও সমস্যা শুধুমাত্র নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা তার নামের সঙ্গে হয়! লোকেদের উপহাস করা বা মেম তৈরি করা দেখতে আমাদের জন্য তেমন কষ্টের নয়। কারণ আমরা ইতিমধ্যেই এটিতে অভ্যস্ত।  কিন্তু যখন আমি দেখি যে, কিছু ব্যবসায়িক পেজ যারা তার (লিটন দাস) নাম ব্যবহার করে বা পরোক্ষভাবে তার খারাপ পারফরম্যান্সের জন্য প্রার্থনা করে তাদের ব্যবসা চালানোর চেষ্টা করছে। এটা দেখে আমি আমার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। কল্পনা করুন এতটা দুষ্টু এবং নিচু মনের মানুষ হয়! আপনি প্রার্থনা করছেন একজন খেলোয়াড় যেন আপনার ব্যবসায়িক কৌশলের জন্য ম্যাচে খারাপ স্কোর করুক! ছি: ছি: কি লজ্জার ব্যাপার এটা!!!’

প্রসঙ্গত, মিরপুরে নিউজিল্যান্ড সিরিজে ফ্লপ ছিলেন ওপেনার লিটন কুমার দাস। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও ধারাবাহিক ব্যর্থ ছিলেন। 

বিশ্বকাপে ব্যর্থতায় মোড়ানো লিটনের ইনিংসগুলো নিয়ে তুমুল সমালোচনা হয়েছে। এর মধ্যে শ্রীলংকার ম্যাচে লিটন দুটি গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচ মিস নিয়েই সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হয়েছে। 

আমারসংবাদ/জেআই