দেড় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন 

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) নতুন বছরের পঞ্চম কার্যদিবসে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় পুঁজিবাজারে লেনদেন হয়েছে। এদিন সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে লেনদেন। ফলে টানা ছয় কার্যদিবস পুঁজিবাজারে উত্থান হলো। তবে এদিন বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট দাম কমেছে। 

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বৃহস্পতিবার ব্যাংক, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি, টেলিকমিউনিকেশন খাতের অধিকাংশ শেয়ারের দাম বাড়ায় সূচক বেড়েছে। অন্যদিকে বিমা, প্রকৌশল খাতের আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং বস্ত্র খাতের শেয়ার বিক্রির ধুম পড়ে।

বাজার পর্যালোচনা করে দেখা যায়, দিনশেষে ডিএসই ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৫৭পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬ হাজার ৯৮৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৪৭২ পয়েন্টে এবং ডিএসই–৩০ সূচক ২৭ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২ হাজার ৬০৩ পয়েন্টে।

দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৬৮ টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৪ টির, দর কমেছে ১৭৯ টির এবং দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫ টির।

ডিএসইতে এক হাজার ৬৮৩ কোটি ৪৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ডিএসইতে আজকের লেনদেন দেড় মাস বা ৩২ কার্যদিবসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। এর আগে ২০২১ সালের ২১ নভেম্বর আজকের চেয়ে বেশি অর্থাৎ এক হাজার ৭৮৬ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছিল।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১৭৭ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৫০৪ পয়েন্টে

এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ৩০৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৩৬টির, কমেছে ১৩৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৫টির দর। সিএসইতে ৪১ কোটি ২৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

আমারসংবাদ/আরএইচ