মেয়ের চুল পড়ার সমাধান করতে গিয়ে উদ্যোক্তা ৮৫-র দম্পতি

কর্মজীবন শেষে অনেকেই নিশ্চিন্তের অবসর বেছে নেন। পঁচাশিতে পৌঁছেও তেমন করেননি সুরতের এক দম্পতি। তাঁরা বেছে নিয়েছেন ব্যবসায় অবসর বিনিয়োগের ঝুঁকি। তবে আর্থিক স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য নয়, তাঁদের ব্যবসা শুরু হয়েছিল মেয়ের চুলপড়ার সমস্যা থেকে। ফলে ব্যবসায়িক মুনাফার বদলে ক্রেতাদেরকে স্বস্তি দিতেই নজর দিয়েছেন বলে দাবি দম্পতির।

টাকে চুল গজানো যায় কী ভাবে? এ নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরেই বিস্তর গবেষণা চলছে। গবেষকদের দলে নাম লিখিয়েছেন সুরতের এক দম্পতিও। তফাৎ হল, গবেষণা করেই থেমে যাননি ওই দম্পতি। সেই সঙ্গে খুঁজে বার করেছেন টাকে চুল গজানোর সমাধানও। দাবি সুরতের পঁচাশি বছরের রাধাকৃ্ষ্ণ এবং শকুন্তলা চৌধরির।

দীর্ঘ কর্মজীবন শেষে আর পাঁচ জনের মতো অবসরের সুখ থেকে নিজেরাই নিজেদের ‘বঞ্চিত’ করেছেন তাঁরা। বরং বৃদ্ধ বয়সেও ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাজে ডুবিয়ে রেখেছেন নিজেদের।