কান্নায় ভেঙে পড়ে লিয়াকতকে দুষলেন ওসি প্রদীপ

সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যার ঘটনায় আদালতে মামলার বিচারিক কার্যক্রম চলাকালে কান্নায় ভেঙে পড়ে তৎকালীন পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে দুষলেন বরখাস্ত ওসি প্রদীপ।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এ ঘটনা ঘটে।

আদালতের কার্যক্রম শেষে বাদীপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর এ বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর জানান, এ সময় প্রদীপ আত্মপক্ষ সমর্থন করে আদালতকে বলেছেন, টেকনাফের বাহাছড়া পুলিশ ফাঁড়ির তৎকালীন পরিদর্শক লিয়াকতই গুলি করে হত্যা করেছেন সিনহাকে। আমি নির্দোষ। আমি আদালতে ১৬৪ ধারার জবানবন্দিও দেইনি।

তিনি আরও বলেন, প্রদীপের দাবির বিষয়ে আদালত আমার বক্তব্য জানতে চাইলে আমি প্রদীপের দাবি যে অসত্য সে বিষয়ে আদালতকে তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করি।

আলোচিত এ মামলায় রায় ঘোষণা করা হবে আগামী ৩১ জানুয়ারি। ওইদিন কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাঈল এ রায় ঘোষণা করবেন।

বুধবার বেলা দুপুর সোয়া একটায় চতুর্থ দিনের যুক্তি-তর্ক উপস্থাপন শেষে এ তথ্য জানিয়েছেন রাষ্ট্রপেক্ষের কৌঁসুলি ফরিদুল আলম।

বুধবার সকাল সোয়া ১০টায় কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাঈলের আদালতে আসামি ওসি প্রদীপের আইনজীবীর অসমাপ্ত যুক্তি-তর্ক উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে চতুর্থ দিনের বিচারিক কার্যক্রম শুরু হয়। শেষ হয় বেলা ১২টার দিকে।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় প্রিজন ভ্যানে করে মামলার ১৫ আসামিকে কক্সবাজার কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়।

মামলার বিচারিক কার্যক্রমে ৮ দফায় গত ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৮৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ৬৫ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন এবং তাদের জেরা শেষ হয়েছে।

গত বছরের ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ রোডের শামলাপুর চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি মামলা করে।

আমারসংবাদ/জেআই