Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ২৫ মে, ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে স্পেশাল কোটা বাতিল মালয়েশিয়ায়

আমার সংবাদ ডেস্ক

জানুয়ারি ২৩, ২০২২, ০৪:২০ এএম


বিদেশি শ্রমিক নিয়োগে স্পেশাল কোটা বাতিল মালয়েশিয়ায়

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিক নিয়োগের বিশেষ কোটা সুবিধা বাতিল করা হয়েছে। মালয়েশিয়ার বিভিন্ন সেক্টরে যে বিদেশি শ্রমিকরা কাজ করছেন তারা আবাসন, জীবনমান এবং আরও নানান ক্ষেত্রে অমর্যাদাকর পরিস্থিতির ভেতর দিয়ে যাচ্ছেন। বিষয়টি সরকারের নজরে আসার পর এই খাতে কোটা পদ্ধতি বাতিল করে যথাযথ প্রক্রিয়ায় আবেদন বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কোনো নিয়োগকর্তা বিদেশি কর্মী নিয়োগ করতে চাইলে তাকে আইন অনুযায়ী কমিটির অনুমোদন নিয়ে নিয়োগ দিতে হবে। 

শনিবার (২২ জানুয়ারি) দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি হামজাহ জয়নুদ্দিন বিদেশি কর্মী নিয়োগে স্পেশাল কোটা বাতিলের তথ্য প্রকাশ করেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। 

তিনি বলেছেন, নিয়োগকর্তাদের কাছ থেকে আসা প্রত্যেকটি আবেদন এখন থেকে মন্ত্রণালয়ের মূল্যায়ন কমিটিতে পাঠানো হবে। সেখানে নির্ধারিত শর্তপূরণ সাপেক্ষে যোগ্য বিদেশি কর্মী নিয়োগের সংখ্যা নির্ধারণ করা হবে।

সাংবাদিকদের দাতুক সেরি হামজাহ জয়নুদ্দিন আরও বলেন, লোকজন যাই বলুক না কেন; কোনো নিয়োগকর্তা বিদেশি কর্মী নিয়োগ করতে চাইলে তাকে আইন অনুযায়ী কমিটির অনুমোদন নিয়ে নিয়োগ দিতে হবে। 

উদাহরণ হিসেবে দেশটির বৃক্ষরোপণ খাতের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, নিয়োগকর্তাকে বিদেশি কর্মী কোটা এবং কতজন এ খাতের কাজের জন্য প্রয়োজন তা জানতে হবে। ধরা যাক, কোনো বাগানে কাজের জন্য এক হাজার কর্মীর প্রয়োজন, কিন্তু সেখানে পর্যাপ্ত আবাসনের ব্যবস্থা নেই। এ ক্ষেত্রে নিয়োগকর্তা মাত্র ৪০০ জন শ্রমিক নিয়োগ দিতে পারবেন।

দেশটির এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যদি কোনো নিয়োগকর্তা অতিরিক্ত কর্মী নিয়োগ দিতে চান, তাহলে দ্বিতীয় দফায় মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন অথবা পুনর্বিবেচনার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করতে হবে। শ্রমিক নিয়োগের প্রক্রিয়া আগের চেয়ে কঠোর করা হয়েছে। 

হামজাহ বলেন, যদি কোটা পদ্ধতির প্রয়োগ না করা হয় এবং অবাধ নিয়োগ প্রক্রিয়া চালু থাকে, তাহলে বিদেশি কর্মীরা শর্ত এবং মানদণ্ড না মেনেই দেশে প্রবেশ করবেন। এর ফলে কর্মীদের কল্যাণের ব্যাপারে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেবে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ তিন বছর পর বাংলাদেশের সঙ্গে নতুন চুক্তি সইয়ের মধ্য দিয়ে খুলে গেছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। মালয়েশিয়ার চাহিদার বিপরীতে চলতি মাসেই কর্মী পাঠানো শুরুর কথা ছিল। কিন্তু মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তা আর এগোচ্ছে না। মধ্যপ্রাচ্যের পর বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার মালয়েশিয়া। দেশটিতে গত ১০ বছরে মোট ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৮১২ জন কর্মী পাঠানো গেছে।

আমারসংবাদ/এআই