বিয়ের জন্য প্রস্তুত, পাত্র খুঁজছেন শিমলা

shimlaa

১৯৯৯ সালে ‘ম্যাডাম ফুলি’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু অভিনেত্রী শিমলা। যদিও প্রথমে এই সিনেমা প্রেক্ষাগৃহগুলোতে পর্যাপ্ত দর্শক টানতে পারেননি। অথচ আশ্চর্যের ব্যাপার হচ্ছে, ‘ম্যাডাম ফুলি’ কয়েক বছর পর টেলিভিশনে প্রিমিয়ার হলে জনপ্রিয়তা পান সিমলা। আর টিভিতে প্রচারিত হয়ে সারা দেশে সাড়া ফেলে ‘ম্যাডাম ফুলি’।

তার ক্যারিয়ারে অর্জনের ঝুলিতে রয়েছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। অভিনেত্রীর দীর্ঘ ক্যারিয়ারে বিয়ের গুঞ্জন বেশ কয়েকবার শোনা গেলেও সেগুলো সত্যি হয়নি।

তবে ২০১৯ সালে একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার মধ্য দিয়ে তার বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে। তৈরি হয় আইনি জটিলতা। সেবারও তিনি এই বিয়ের খবর ‘সত্য নয়’ বলেছিলেন।

যদিও সংবাদমাধ্যম সূত্রে সে সময় জানা গিয়েছিল, ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর এক পরিচালকের জন্মদিনে পলাশ আহমেদের সঙ্গে পরিচয় হয় শিমলার। ২০১৮ সালের ৩ মার্চ পলাশ আহমেদের সঙ্গে বিয়ে করেন শিমলা। একই বছরের ৬ নভেম্বর পলাশকে ডিভোর্স দেন এই অভিনেত্রী। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রামে বাংলাদেশ বিমানের ‘ময়ূরপঙ্খী’ ছিনতাই চেষ্টার ঘটনায় নিহত হন পলাশ।

এখন প্রশ্ন হলো- কবে বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন শিমলা? জানতে চাইলে এই চিত্রনায়িকা বলেন, ‘বিয়ের জন্য প্রস্তুত আছি। তবে এখনও পাত্রের খোঁজ পাইনি। তাই মনের মতো পাত্র পেলেই বিয়ে করব।’

দীর্ঘদিন পরে শিমলা অভিনীত ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে। তরুণ নির্মাতা রুবেল আনুশ পরিচালিত সিনেমাটি সেন্সর বোর্ড আটকে দিলে অনলাইনে মুক্তি পায়।

এ প্রসঙ্গে শিমলা বলেন, ‘আমি মনে করি, সেন্সরে নিষিদ্ধ হওয়ার মতো কোনো দৃশ্য বা সংলাপ এ সিনেমায় নেই। আমি সে ধরনের কোনো দৃশ্যে কাজও করিনি। তাছাড়া সেন্সরে অযোগ্য হওয়ার ব্যাপারটা তো আমি জানিই না! দুঃখজনক হলো পরিচালক শিল্পী বা কোনো গণমাধ্যমেও বিষয়টি পরিষ্কার করেননি। এই সিনেমার শিল্পী হিসেবে এ বিষয়ে এখনও আমি অন্ধকারে আছি।’

আমারসংবাদ/এডি