প্রধানমন্ত্রীকে ‘অনেক কিছু’ বলার আছে মাহির

mahi.

এই মুহুর্তে টক অফ দ্যা টপিক সদ্য পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া  তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির ফাঁস হওয়া ফোনালাপ। সোশ্যাল মিডিয়ায়  অডিও ক্লিপটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই চলছে আলোচনা-সমালোচনা। 

 অডিও ক্লিপটিতে শোনা যায়, অশ্লীল ভাষায় চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে দেখা করার জন্য বাধ্য করছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। সেখানে কথা বলতে শুনতে পাওয়া যায় চিত্রনায়ক ইমনকেও।

মূলত প্রতিমন্ত্রী ও এই নায়কের কথোপকথনটিই ভাইরাল হয়েছে। যেখানে মাহি ছিলেন তৃতীয় পক্ষ। 

এ বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন নায়ক ইমন। তিনি বলেন, ‘অডিও ক্লিপটি সঠিক। অপর প্রান্তে ছিলেন প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। তবে ঘটনাটা দুই বছর আগের। একটি ছবির মহরত অনুষ্ঠানের আগের রাতে ফোন দেন প্রতিমন্ত্রী।

ইতিমধ্যে এই বিষয়ে ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন ডিবি।  

এদিকে ওমরাহ করতে বর্তমানে সৌদি আরব স্বামীসহ রয়েছেন চিত্রনায়িকা মাহি। সেখান থেকেই গতকাল (৬ ডিসেম্বর) রাত নয়টার দিকে সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও বার্তা দিয়েছিলেন। জানা যায়, দেশে ফিরলেই তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করবে ডিবি।  

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) কিছুক্ষণ আগে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন মাহি। পাঠকের জন্য তা হুবহু প্রকাশ করা হলো।

মাহি লিখেছেন, “উমরাহ থেকে ফিরেই আমার প্রথম এবং একমাত্র চাওয়া আমি আমাদের সবার অভিভাবক, আমাদের মমতাময়ী মা ( মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সঙ্গে ৩০ সেকেন্ডের জন্য হলেও দেখা করতে চাই। অনেক কিছু বলার আছে। এই মনোবাসনা নিয়েই আমি মক্কা ত্যাগ করবো। আমার বিশ্বাস এই চাওয়া ব্যর্থ হবেনা।”

প্রসঙ্গত, বর্তমান সরকার দায়িত্ব নেওয়ার পাঁচ মাসের মাথায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে স্বাস্থ্য থেকে সরিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়। তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়ে ডা. মুরাদ হাসান ইতোমধ্যে বেশকিছু ‘অবমাননাকর’ ও ‘বর্ণবাদী’ মন্তব্য করে বিতর্কিত হয়েছেন। সর্বশেষ চলচ্চিত্র অভিনেতা ইমন ও অভিনেত্রী মাহিয়া মাহির সঙ্গে ফোনালাপ ফাঁস নিয়ে প্রতিমন্ত্রীর সমালোচনা শুরু হয়েছে।

আমারসংবাদ/এডি