ফের বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা

ফের বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা
নিরাপদ সড়কের দাবিতে গতকাল ধানমন্ডির ২৭ নম্বর সড়কে বিক্ষোভের সময় বিভিন্ন যানবাহন চালকের লাইসেন্স ও কাগজপত্র যাচাই করতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের-এম খোকন সিকদার

সিটি কর্পোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় রাজধানীর গুলিস্তানে নটর ডেম কলেজের নাঈম হাসানের নিহতের ঘটনায় বিচার এবং বাসে হাফ পাস কার্যকরের দাবিতে ফের বিক্ষোভে নেমেছে শিক্ষার্থীরা। রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭ নম্বর সড়ক অবরোধ করে তারা।

গতকাল শনিবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে ধানমন্ডি গভ. বয়েজ স্কুল, মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি স্কুল, রেসিডেনশিয়াল মডেল স্কুল ও সেন্ট জোসেফ স্কুলের কয়েকশ শিক্ষার্থী। বাসে হাফ পাস কার্যকর, নটর ডেমের নাঈম হাসানের নিহতের ঘটনায় বিচার চেয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছে তারা। তাদের অবস্থানের কারণে রাস্তায় যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেছে। 

এর প্রভাবে ধানমন্ডি ২৭ নম্বর ও এর আশপাশের সড়কে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ছাত্রদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন ডিএমপির তেঁজগাও বিভাগের উপকমিশনার বিপ্লব কুমার সরকার।

 তিনি বলেন, ‘ছাত্ররা তাদের কয়েকটি দাবি নিয়ে রাস্তা অবরোধ করেছে। আমরা তাদের সাধারণদের ভোগান্তির কথা বুঝিয়ে বলেছি। তারা আর কিছুক্ষণ থেকে চলে যাবে বলেছে। কিছুক্ষণ পর আমরা তাদের আবার বোঝাব। এখানে যেন কোনো অপ্রীতিকর কিছু না ঘটে সে জন্য পুলিশ সতর্ক অবস্থানে আছে।’ সরকারের প্রতি শিক্ষার্থীদের আহ্বান, তাদের ৯টি দাবি যেন দ্রুত কার্যকর করে সরকার। 

তাদের দাবিগুলো হলো—
১. দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে শিক্ষার্থীসহ সকল সড়ক হত্যার বিচার করতে হবে ও পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।
২. ঢাকাসহ সারা দেশে সকল গণপরিবহনে (সড়ক, নৌ, রেল ও মেট্রোরেল) শিক্ষার্থীদের হাফ পাস নিশ্চিত করে প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে।
৩. গণপরিবহনে নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে এবং জনসাধারণের চলাচলের জন্য যথাস্থানে ফুটপাত, ফুটওভার ব্রিজ বা বিকল্প নিরাপত্তাব্যবস্থা দ্রুততর সময়ের মধ্যে নিশ্চিত করতে হবে।
৪. সড়ক দুর্ঘটনায় আহত সকল যাত্রী এবং পরিবহন শ্রমিকের যথাযথ ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করতে হবে।
৫. পরিকল্পিত বাস স্টপেজ ও পার্কিং স্পেস নির্মাণ ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। (এ ক্ষেত্রে প্রয়োজনে কঠোর আইন প্রয়োগ করতে হবে)।
৬. দ্রুত বিচারিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ও যথাযথ তদন্তসাপেক্ষে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের দায়ভার সংশিষ্ট ব্যক্তি বা মহলকে নিতে হবে।
৭. বৈধ ও অবৈধ যানবাহন চালকদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বৈধতার আওতায় আনতে হবে এবং বি আরটিএর সকল কর্মকাণ্ডের ওপর নজরদারি ও জবাবদিহি নিশ্চিত করতে হবে।
৮. আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে ঢাকাসহ সারা দেশে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা অবিলম্বে স্বয়ংক্রিয় ও আধুনিকায়ন এবং পরিকল্পিত নগরায়ন নিশ্চিত করতে হবে।
৯. ট্রাফিক আইনের প্রতি জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য একে পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান সম্প্রচার করতে হবে।

দাবিগুলোর বাস্তবায়ন না হলে নিয়মিত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। গত বুধবার বেলা ১১টার দিকে গুলিস্তান বঙ্গবন্ধু স্কয়ারের দক্ষিণ পাশে নটর ডেম কলেজের মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী নাঈম হাসানকে ধাক্কা দেয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি ময়লাবাহী ট্রাক। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার বিচার, বাসে হাফ পাস কার্যকর এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে শিক্ষার্থীরা। ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্টে টানা দুই দিন বিক্ষোভের পর শুক্রবার বিরতি দিয়ে ফের রাস্তায় নেমেছে তারা।