Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ১৮ মে, ২০২২, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

ফেসবুকে সাড়া ফেলেছে নাইম শাবনাজের ৬ মাস বয়সের ছবি

বিনোদন প্রতিবেদক 

জানুয়ারি ১৪, ২০২২, ০৭:০০ পিএম


বাংলাদেশের সিনেমায় তারুণ্যের সূচনা করেছিল যে জুটি, সেই জুটি হচ্ছেন নাইম-শাবনাজ। এহতেশাম পরিচালিত ‘চাঁদনী’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে এই জুটির অভিষেক হয়। ১৯৯১ সালের ৪ অক্টোবর মুক্তি পায় সিনেমাটি। এ সিনেমা দিয়েই বাংলাদেশের সিনেমার নতুন এক অধ্যায়ের যাত্রা শুরু। 

নাইম-শাবনাজকে দেখেই পরবর্তীতে অনুপ্রাণিত হয়ে সিনেমা জগতে অনেক তরুণ নায়ক-নায়িকার আগমন ঘটে। নাইম-শাবনাজ দীর্ঘদিন হলো সিনেমায় অভিনয় করছেন না। আবার কখনো সিনেমাতে অভিনেয় ফেরা হবে কী না— সেটাও নিশ্চিত করে দুজন বলেননিও কখনো। 

তবে সিনেমা-সংশ্লিষ্ট সব কাজের সাথে তারা সম্পৃক্ত থাকার চেষ্টা করেন। যেমন, আগামী ২৮ জানুয়ারি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোট দিতে আসতে পারেন তারা। তবে সেটাও নিশ্চিত নয়, কারণ কিছুদিন আগে নাইমের বাইপাস সার্জারি হয়েছে। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী তাকে বেশ নিরিবিল সময় কাটাতে হচ্ছে। যে কারণে তিনি বর্তমানে স্ত্রী শাবনাজকে নিয়ে টাঙ্গাইলের পাথরাইলে নিজের খামার বাড়িতেই সময় কাটাচ্ছেন। দুই  কন্যা নামিরা-মাহাদিয়া আছেন কানাডায়। সেখানেই তারা উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করছেন। 

এদিকে গতকাল সকালে নাইম-শাবনাজ তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেজ ‘ঘধরস ঝযধনহধু’-এ নিজেদের ৬ মাস বয়সের দুটি ছবি পোস্ট করেছেন। ৬ মাস বয়সের ছবি পোস্ট করায় তাদের ভক্ত, শুভাকাঙ্ক্ষী, আত্মীয়-স্বজন, সহকর্মীরা তাতে নানান ধরনের কমেন্টস করছেন। নাইম-শাবনাজ সেসব কমেন্টসের রিপ্লাইও দিচ্ছেন। প্রত্যেকেই বেশ আগ্রহ নিয়ে নানান ধরনের প্রশ্ন করছেন। 

নাইম বলেন, ‘আমার যতদূর মনে আছে, আমার জন্ম হয়েছে রাজধানীর গ্রীন রোডে ডা. ফিরোজা বেগমের তত্ত্বাবধানে। জন্মের পর সবাই বলছিলেন আমি দেখতে মায়ের মতো হয়েছি। কিন্তু এই বড় বেলায় এসে অনুভব করতে পারছি যে, আমি আসলে আমার বাবার মতোই হয়েছি দেখতে। আর ফেসবুকে যে ছবিটি দিয়েছি, এটা ভুল না করে থাকলে ৭১-এর নভেম্বর মাসে তোলা ছবি। করটিয়া জমিদার বাড়ির বাগানে সাদা চাদরে আমাকে রেখে তোলা ছবি। ছবিটা চোখের সামনে কত কত স্মৃতি নিয়ে এলো! ভীষণ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছি।’ 

শাবনাজ বলেন, ‘আম্মার কাছ থেকে জানা আমার জন্ম হয়েছে শান্তিনগরে ডা. ফরিদার তত্ত্বাবধানে। ছোটবেলায় আমি দেখতে মায়েরই মতো ছিলাম। আমারও যদি ভুল না হয়ে থাকে, তবে ছয় মাসের এই ছবিটি ১৯৭৫-এর এপ্রিল মাসের ছবি। ছবিটি পোস্ট দেয়ার পর আমাদের দুজনকে ঘিরে শুভাকাঙ্ক্ষীদের মধ্যে নানান ধরনের কৌতূহলমূলক প্রশ্ন দেখে ভীষণ ভালো লেগেছে।’