নান্দাইলে প্রশাসন-জনপ্রতিনিধির সমন্বয়ে নির্মিত হলো ভূমিহীনদের পাকা ঘর

ময়মনসিংহের নান্দাইলে মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য ঘর নির্মাণ প্রকল্পের কাজ উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধির সমন্বয়ে সম্পন্ন হয়েছে। 

জানা গেছে, দুর্যোগ পুনর্বাসন ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় অধিদপ্তর থেকে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় উপজেলার পৌর সদর সহ ১৩টি ইউনিয়নে ইতিমধ্যে ৬২ জন উপকারভোগীর জন্য সরকার প্রদত্ত নকশা অনুযায়ী পরিবেশ বান্ধব ইট ও উন্নতমানের সামগ্রী দিয়ে সেমি পাকা ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। প্রতিটি ঘরেই বিদ্যুৎতের ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। 

কিছু উপকারভোগীর ঘরে পানির ব্যবস্থা অপূরণীয় থাকায় সেসমস্ত উপকারভোগী পরিবারের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের মাধ্যমে দ্রুত পানীয় জলের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. এরশাদ উদ্দিন এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।

ইতিমধ্যে প্রথম পর্যায়ের ৬২ ঘর স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যানগণ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাগণের উপস্থিতিতে উপকারভোগীর মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। আর দ্বিতীয় পর্যায়ের আরো ১০টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের পথে, দ্রুতই উপকারভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে। 

চরবেতাগৈর ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফরিদ উদ্দিন, শেরপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন ভুইঁয়া মিলটন ও সিংরইল ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম ভূইয়া জানান, প্রকৃত ভূমিহীন ব্যক্তিগণই ঘরের বরাদ্ধ পেয়েছেন। 

উক্ত প্রকল্পে সম্পৃক্ত থেকে নির্মাণকাজে তারা প্রশাসনকে সার্বিকভাবে সহযোগীতা করেছেন এবং করে যাচ্ছেন। আর উপকারভোগীরা প্রধানমন্ত্রীর এই উপহার পেয়ে খুশী এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার এরশাদ উদ্দিন জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, মেম্বারদের মাধ্যমে প্রাপ্ত উপকারভোগীদের তালিকা সঠিকভাবে যাচাই-বাছাই করে যোগ্য ব্যক্তিকে ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। 

অপরদিকে এসিল্যান্ড, উপজেলা প্রকৌশলী, পিআইও ও অন্যান্য কর্মকর্তাগণ সহ উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ ঘর নির্মাণ কাজ নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছেন। 

এছাড়া উক্ত প্রকল্পের কাজ শুরু থেকে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি- আইসিটি ও শিক্ষা বিভাগ) মোছাঃ সারমিন সুলতানা বারবার পরিদর্শন করে ঘরের নির্মাণ কাজে গতি এনেছেন। 

এ প্রকল্পে ঘর প্রতি ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে উপজেলার বীর বেতাগৈর ইউনিয়নে ৯টি, মোয়াজ্জেমপুর ২টি, নান্দাইল ৮টি, চন্ডীপাশা ৬টি, গাংগাইল ৫টি, মুশুল্লী ১টি, সিংরইল ৯টি, আচারগাঁও ৬টি, শেরপুর ৫টি, জাহাঙ্গীরপুর ১টি এবং চর বেতাগৈর ইউনিয়নে ১০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে এ গৃহগুলো দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ের আরো ১০টির নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।   

আমারসংবাদ/এআই