Amar Sangbad
ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

রাস্তা সংস্কারে পাথরের বদলে ডাস্ট

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

জানুয়ারি ১৭, ২০২২, ০৩:৩০ পিএম


রাস্তা সংস্কারে পাথরের বদলে ডাস্ট

রাস্তা সংস্কার করতে গিয়ে নামমাত্র পাথর দিয়ে পুরোটায় ডাস্ট ঢেলে পিচ ঢালাইয়ের কাজ সারছেন ঠিকাদার। পিচ ঢালার পর ঠিমক মত দেওয়া হচ্ছে না রোলার। এতে কিছুটা পর পর রাস্তায় ভাজ পড়েছে। এমন নিম্ন মানের সংস্কার কাজের ফলে খুব দ্রুতই রাস্তা ভেঙে আগের বেহাল অবস্থায় ফিরে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ পৌরশহরের নওহাল বাসস্ট্যান্ড থেকে দক্ষিণ দিকে শিশু পার্কের সামনে দিয়ে রেল লাইনের দিকে যাওয়া রাস্তার চিত্র এটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২৭৫ মিটার দৈর্ঘ্য ও ২০ ফিট প্রস্তের পৗরশহরের শিশু পার্কের সামনের এ রাস্তাটির পিচ করার কাজ চলছে। ২৪ লক্ষ টাকার বেশি বরাদ্দের এ কাজের ঠিকাদার পাশের উপজেলা মদনের মোতাহার হোসেন খান।

এলাকাবাসী জানায়, কাজ খুবই নিম্ন মানের হয়েছে। পাথরের পরিবর্তে ডাস্ট দিয়ে কাজ করার ফলে এ রাস্তা বেশিদিন টিকবে না। রোলার দিয়ে রাস্তাটি সমততলও করা হয়নি। শিশু পার্কের সামনের রাস্তা হওয়ায় এখানে প্রতিনিয়ত মানুষ গাড়ি নিয়ে আসবে। এই রাস্তাটি ভাল মানের হওয়া উচিত ছিল। রাস্তা ঠেকসই হওয়ার মূল উপাদনই হলো পাথর, কিন্তু এখানে ঠিকাদার পাথরের পরিবর্তে ডাস্ট দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এতে ছয় মাসও টিকবে না এই রাস্তা।

স্থানীয় বাসিন্দা আহমেদ শরীফ বলেন, উন্নয়নের নামে এখানে ঠিকাদার আর প্রকোশলীর পকেট ভরছে। কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। পিচ ঢালাইয়ে কয়েক ধরণের পাথর দেওয়া হয়। আর মসৃণের জন্য সামান্য পরিমাণ ডাস্ট দেওয়া হয়। এই রাস্তায় তো দেখছি পুরোটাই ডাস্ট। পাথর নেই বল্লেই চলে। তাহলে রাস্তা টিকবে কিসের উপর। সস্তা দামের ধূলোবালি দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে ঠিকাদার মোতাহার হোসেন খান বলেন, ডাস্টের পরিমাণ কিছুটা বেশি হওয়ায় রাস্তার জন্য ভাল হচ্ছে। এতে করে মেশাতে গিয়ে বেশি বিটুমিন লাগছে, তাই রাস্তা টিকবে বেশিদিন। এটা কোনো অনিয়ম নয়।

ঠিকাদারের সাথে সূর মিলিয়ে পৌর প্রকৌশলী সাইফুল আমিন বলেন, এখানে বিভিন্ন মাপের পাথরও আছে, তবে ডাস্টের পরিমাণটা বেশি। রাস্তার জন্য ডাস্ট খুবই ভাল। যদিও পাথরের চেয়ে ডাস্টের দাম কম, তবে অনেক ঠিকাদার তো ডাস্ট দিতেই চায় না। আমরা তাকে একটু বেশি পরিমাণে ডাস্ট দেওয়ার জন্য বলেছি। বরং ডাস্ট দেওয়ার ফলে ঠিকাদারের লোকশান হবে। কারণ ডাস্ট মেশাতে বিটুমিন বেশি লাগে।

আমারসংবাদ/কেএস