Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ২৫ মে, ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

জলঢাকায় অবৈধ ভারতীয় গরু বিক্রি বন্ধে ইউএনও’র সতর্কতা

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি

জানুয়ারি ২৫, ২০২২, ০১:২০ পিএম


জলঢাকায় অবৈধ ভারতীয় গরু বিক্রি বন্ধে ইউএনও’র সতর্কতা

নীলফামারীর জলঢাকায় বিভিন্ন চোরাইপথে আসা অবৈধ ভারতীয় গরু ও মহিষ বিক্রি বন্ধে হাট ইজারাদারকে সতর্ক করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব হাসান। 

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার মীরগঞ্জহাটে হাট ইজারাদারকে সতর্ক করেন তিনি। 

জানা যায়, উপজেলার বৃহৎ পশুর হাট মীরগঞ্জহাটে মঙ্গল ও শনিবার হরিয়ানা প্রজাতীর ভারতীয় শতাধিক গরু এবং শতাধিক অসুস্থ মহিষ হাটে নিয়মিত কেনাবেচা হয়ে আসছে। এসময় ওই সকল ভারতীয় পশুর গায়ে একটি বিশেষ সংখ্যা ব্যবহার করা হচ্ছে। 

দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে গরু ব্যবসায়ীরা এসে এ সকল ভারতীয় পশু ক্রয় করে ট্রাকে করে নিয়ে যাচ্ছেন। হাটে ভারতীয় গরুর দাম কম হওয়ায় এবং চাহিদা বেশি থাকায় দেশি গরু ও খামারীরা তাদের পশুর ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। 

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী, ভারতীয় পশু বাংলাদেশে আমদানি করতে হলে নির্দিষ্ট করিডোরে কাষ্টমস এর ভ্যাট পরিশোধের রশিদ, ট্যাক্স প্রদানের রশিদ থাকা বাধ্যতামূলক হলেও মীরগঞ্জহাটে আগত ভারতীয় পশুগুলোর মালিকগন তা দেখাতে পারেন না। 

একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যেমে শুধুমাত্র সিমান্ত এলাকার একটি হাটের রশিদ দিয়েই স্থানীয়ভাবে ম্যানেজ করে ওই হাটে বিক্রি হচ্ছে এসব পশু। এতে রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছেন সরকার। এ নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রচারের পরও কোনে ব্যবস্থা নেননি উপজেলা প্রশাসন।

সম্প্রতি গত কয়েকদিন থেকে ‘‘অবৈধ ভারতীয় গরু মহিষ বিক্রি বন্ধে নিরব প্রশাসন’’ স্থানীয় সচেতন ব্যক্তিরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখালিখি করলে তা ব্যপক সমালোচনার সৃষ্টি হয় এবং নড়েচড়ে বসে উপজেলা প্রশাসন। 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহাবুব হাসান বলেন, ‘‘ভারতীয় গরু বিক্রি বন্ধে আজকে আমি হাট ইজারাদারকে সতর্ক করেছি। আগামী হাটে এসব ভারতীয় গরু বিক্রি করা হলে আইন অনুযায়ি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’

আমারসংবাদ/এআই