কম্পিউটার গেমস খেলায় কিশোরের মৃত্যু

   টানা ২২ দিন ধরে টানা কম্পিউটার গেম খেলে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে রাশিয়ার এক কিশোরের। নিহতের নাম রুস্তম বলে জানা গিয়েছে। বয়স মাত্র ১৭। রাশিয়ার ছোট শহর উস্যালির বাসিন্দা। দুর্ঘটনায় পা ভেঙে গত ৮ অগস্ট থেকে বাড়িতে বসেছিল সে। একঘেঁয়েমি ও সময় কাটাতে সে অনলাইন গেম খেলা শুরু করে। কিন্তু এর যে জীবন দিয়ে চোকাতে হবে ভাবতেও পারেনি সে।

জানা গিয়েছে, একমাত্র খাওয়া ও ঘুমানোর সময় ছাড়া বাকি সময় গেম খেলেই কাটিয়েছে। রুস্তমের বাবা-মা জানিয়েছেন, সর্ব ক্ষণই তার ঘর থেকে কি-বোর্ডের আওয়াজ আসত। কিন্তু ৩০ অগস্ট কোনও আওয়াজ না পেয়েই ঘরে ঢুকে দেখেন রুস্তম অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছে। হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। তদন্তকারীরা বলছেন, সে না কি গত দেড় বছরে দু’হাজার ঘণ্টা অনলাইন গেমে সময় কাটিয়েছে।

গত মার্চেও টানা ১৯ ঘণ্টা অনলাইনে গেম খেলে মৃত্যু হয় এক চিনা যুবকের। গেমের নেশা থেকে চিকিৎসকরা বার বারই এ বিষয়ে সতর্ক করেন অভিভাবকদের। আর তরুণ প্রজন্মের গেমের নেশাকে লগ্নি করেই গেম প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি বাজারে পাল্লা দিয়ে নেমে পড়েছে। যত বেশি অ্যাডভেঞ্চার, তত বেশি খেলার প্রবণতা। ঘুম খাওয়া-নাওয়া ভুলে গিয়ে সর্ব ক্ষণ মোবাইলে বা কম্পিউটারে নানা রকম অ্যাডভেঞ্চার জয়ের নেশায় মশগুল হয়ে পড়ছে তারা। কিন্তু এই গেম যে ধীরে ধীরে তাদের মানসিক ও শারীরিক ভাবে অক্ষম করে তুলছে সেটা এক বাক্যে স্বীকার করে নিচ্ছেন চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞরা। ফলে যতটা সম্ভব গেমের নেশা থেকে নতুন প্রজন্মকে দূরে রাখা যায় সেটাই ভালো বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা।