Amar Sangbad
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪,

গবি শিক্ষককে হেনস্তা, প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

গবি প্রতিনিধি

গবি প্রতিনিধি

মে ১৫, ২০২৪, ০৮:৪৯ পিএম


গবি শিক্ষককে হেনস্তা, প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের (গবি) আইন বিভাগের সহকারী প্রভাষক লিমন হোসেনের সাথে বাজে আচরণ, হেনস্তা ও মারমুখী হওয়ার অভিযোগে মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে আইন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বুধবার সকালে অ্যাকাডেমিক ভবন থেকে প্ল্যাকার্ড হাতে মৌন মিছিল করে মূল ফটক ঘুরে বাদামতলায় মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের দাবি ছিল, আইন বিভাগের শিক্ষক লিমন হোসেনের সঙ্গে বাজে আচরণ করা, সমাবর্তন বানচালের চেষ্টা ও বহিরাগত প্রবেশ করিয়ে ক্যাম্পাসে আন্দোলনের নামে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টিকারী শিক্ষার্থীদের দ্রুত বিচার করা।‍‍`

এ বিষয়ে আইন বিভাগের শিক্ষার্থী মাসুদ রানা বলেন, গতকাল আমাদের শিক্ষকদের সাথে যে বাজে আচরণ করা হয়েছে তার প্রতিবাদস্বরূপ আজকের এই মানববন্ধন। আমরা চাই যে বা যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের মানক্ষুন্ন করতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর জোর-জবরদস্তি করে প্রশাসনের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করতে বলেছে তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হোক।

একই বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী মুক্তা বলেন, শিক্ষক হচ্ছেন আমার বাবা-মার স্বরূপ তাকে নিয়ে মিথ্যা অপবাদ দেওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে আজকে আমরা মানববন্ধন কর্মসূচি করছি। আমরা চাই যারা এসব কর্মকাণ্ড করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করছে তাদেরকে অনতিবিলম্বে বহি:ষ্কার করা হোক। এর পিছনে যে সব বহিরাগত শিক্ষার্থী রয়েছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হোক।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন বলেন, এই বিষয়গুলো নিয়ে প্রক্টোরিয়াল বডি গঠন করে দেওয়া হয়েছে। গতকালের ঘটনা ও আজকের ঘটনা সব কিছু নিয়েই তাদের পর্যালোচনার সাপেক্ষে তদন্ত করে রিপোর্ট অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

এর আগে গতকাল রাজনীতি ও প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী আবিদ, রসায়ন বিভাগের নাসিমসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বহিরাগত শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিভিন্ন বিভাগে রেজিস্ট্রার বিরোধী আন্দোলন করার জন্য শিক্ষার্থীদের জোর-জবরদস্তি করার অভিযোগ উঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের ওপর চাপ প্রয়োগ করলে তাদের শিক্ষক প্রভাষক লিমন হোসেনকে অবহিত করলে তিনি তাদের কাছে কারণ জানতে চান। তখন তাকে অভিযুক্ত শিক্ষার্থীরা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারার জন্য তেড়ে আসে।

শিক্ষক লিমনের বিরুদ্ধে উল্টো অভিযোগ করে আবিদ বলেন, ‘শিক্ষক লিমন হোসেন আমাকে এখানে আসার কারণ জিজ্ঞাসা করেন। আমাদের আন্দোলনের কথা জানানো মাত্রই তিনি আমার উপর উগ্র আচরণ শুরু করেন। প্রথমে বাবা-মা তুলে গালি-গালাজ, পরে সরাসরি আক্রমণ করেন। মুখে ও বুকে চড় থাপ্পড় মারতে থাকেন।’

ইএইচ

Link copied!