Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ২০ মে, ২০২৪,

রাজধানীর গুলশান-বনানীর সিসা বার বন্ধে নোটিশ

মো. মাসুম বিল্লাহ

এপ্রিল ২৬, ২০২৩, ১২:৩৪ পিএম


রাজধানীর গুলশান-বনানীর সিসা বার বন্ধে নোটিশ

রাজধানীর গুলশান ও বনানীতে অনুমোদনবিহীন মদের বার, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের শ্রেণিভুক্ত সিসা ও সিসা  বার বন্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আইনি নোটিশ পাঠিয়েছে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবী। 

মঙ্গলবার এডভোকেট এসএম জুলফিকার আলী জুনু রেজিস্ট্রি ডাকযোগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি, র‌্যাব ফোর্সের মহাপরিচালক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ডিএমপি’র পুলিশ কমিশনার, ডিবি প্রধান, গুলশান জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার, বনানী থানা অফিসার ইনচার্জ ও গুলশান থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর এ নোটিশ পাঠানো হয়।

নোটিশ প্রাপ্তির ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অবৈধ সিসা বার ও অনুমোদনবিহীন মদের বার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।  অন্যথায় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক মাদকের তালিকাভুক্ত সিসা বার বন্ধে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে রিট পিটিশন দাখিল করার কথা বলা হয়।

নোটিশে বলা হয়, গুলশান, বনানী সহ ঢাকার বিভিন্ন অভিজাত এলাকায় অনুমোদন বিহীনভাবে বার খুলে মদ বিক্রয় হচ্ছে এবং গুলশান, বনানীর বিভিন্ন রোডে বিভিন্ন লাউঞ্জ/ রেস্টুরেন্টের আদলে প্রকাশ্যে মাদক মিশ্রিত সিসা বিক্রয় হচ্ছে। দেশের প্রচলিত আইনে সিসাকে মাদকের শ্রেণিভুক্ত করা হয়েছে। সিসা বিক্রয়কারী ও সেবনকারীদের বিরুদ্ধে শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকার প্রকাশিত নিউজের মাধ্যমে জানতে পারি বনানী ১১ নং রোডের একটি রেস্টুরেন্টে সিসা বার বানিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে সিসা বিক্রয় করছে। এক কথায় রাত- দিন ২৪ ঘণ্টা এই সিসা বারে মাদকের শ্রেণিভুক্ত সিসা বিক্রয় হচ্ছে। বারে এসে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা তা সেবন করছে। মাদকের শ্রেণিভুক্ত সিসায় মাদকাসক্ত হচ্ছে যুবক- যুবতীরা।

এ ছাড়া বনানীর কামাল আতাতুর্ক এভিনিউয়ে আরও একটি রেস্টুরেন্ট নামধারী প্রতিষ্ঠানে প্রকাশ্যে মাদকের শ্রেণিভুক্ত সিসা বিক্রয় হচ্ছে। এভাবে গুলশান, বনানীতে প্রায় ৫০-এর অধিক সিসা বার অবৈধভাবে পরিচালিত হচ্ছে বলে পত্রপত্রিকার মাধ্যমে অবগত হই। গুলশান এলাকায় ১১২ রোডে এবং গুলশান এভিনিউতে রুপটপে অবৈধ সিসা বার পরিচালিত হচ্ছে।

আরএস

Link copied!