Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

আসছে মাঠ দখলের নির্দেশনা

রফিকুল ইসলাম

সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২২, ০১:২৫ এএম


আসছে মাঠ দখলের নির্দেশনা

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সাথে মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগ ও দলটির সহযোগী সংগঠনের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের সাথে যৌথসভা আজ। বেলা ১১টায় ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সূত্রে জানা যায়, আজকের যৌথসভায় সব থেকে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে মাঠের রাজনীতি। বিশেষ করে আন্দোলনের নামে বিএনপির সারা দেশে লাগাতার কর্মসূচি, পুলিশ ও আওযামী লীগের নেতাকর্মীদের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষের বিষয়টি ভালোভাবে নেয়নি ক্ষমতাসীনরা। দেশব্যাপী কর্মসূচির নামে বিএনপির নৈরাজ্য রোধে দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের করণীয় কি!

সে বিষয়ে বিস্তার আলোচনা হবে। মূলত আওয়ামী লীগের চাওয়া দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিএনপি যেন কোনোভাবেই সরকার বিরোধী আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারে, সেই দিকে সতর্ক থাকার পরামর্শও আসবে যৌথসভায়। এছাড়াও ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতার বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ও মেয়াদোত্তীর্ণ সহযোগী সংগঠনের সম্মেলনের বিষয় নিয়েও আজকে আলোচনা হবে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতৃত্ব ঘিরে কোনোভাবেই বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না। সম্মেলন ছাড়াই প্রেস নির্ভর কমিটি গঠন, বিতর্কিত এবং জামায়াত বিএনপিপন্থিদের পদায়ন, কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিতসভা না করা, সিদ্ধান্ত গ্রহণে সংগঠনের সিনিয়রদের গুরুত্ব না দেয়া বা মতামত না নেয়া, কমিটি গঠনের আর্থিক লেনদেন এবং প্রশ্নবিদ্ধ পদধারি নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করাসহ নানা অভিযোগের মুখে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। তাদের বিরুদ্ধে একাট্ট হয়েছে শতাধিক নেতা। বিষয়গুলো নিয়ে ক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা। সংগঠনের ভাবমূর্তি রক্ষায় দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্মেলন দিতে চান তারা।

এ বিষয়ে আজকে চূড়ান্ত ঘোষণা আসতে পারে। যদিও এর আগের বর্ধিতসভায় সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে জমা দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। দলের সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশনার পরও জয়-লেখক সম্মেলনের জন্য কোনো ধরনের কার্যক্রম শুরু করেনি।    

সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের দ্বন্দ্ব ও কোন্দলে বিভক্ত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। সময় যতই গড়াচ্ছে ততই দূরত্ব বাড়ছে আবু আহমেদ মন্নাফী ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবিরের।

তাদের বিরুদ্ধে ইউনিট সম্মেলনে মাইম্যান সৃষ্টি, হাইব্রিড অনুপ্রবেশ করানো, আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ রয়েছে। নিজেদের দ্বন্দ্ব, কোন্দল, বিভক্তি-বিভাজনের কারণে  ত্যাগী ও পরীক্ষিতদের বাদ দেয়ার অভিযোগও কম নয়। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ দলটির কেন্দ্রীয় সিনিয়র নেতারা। এরফলে আজকের বৈঠকে মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলনের নির্দেশনা আসতে পারে। মূলত চলতি বছরেই এই দুই শাখার মেয়াদ পূর্ণ হবে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এ বছরই মহানগর উত্তর-দক্ষিণের সম্মেলন করা হতে পারে বলে আওয়ামী লীগের একটি সূত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। মেয়াদ নেই মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ ও তাঁতী লীগের। মেয়াদোত্তীর্ণ নেতৃত্ব দিয়ে চলছে সাংগঠনিক কার্যক্রম।

আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, মেয়াদোত্তীর্ণ এই সকল সহযোগী সংগঠনের সম্মেলন নিয়ে যৌথসভায় বিস্তার আলোচনা হবে। আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক আমার সংবাদকে বলেন, দলের সঙ্গে সহযোগীদের যৌথসভায় দলের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হয়। এবারও ব্যতিক্রম হবে না।

Link copied!