Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ, ২০২৪,

কোভিড-১৯

৩৫ লাখ মানুষকে সচেতন করেছে এফপিএবি

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

নভেম্বর ২২, ২০২৩, ০৬:৩৪ পিএম


৩৫ লাখ মানুষকে সচেতন করেছে এফপিএবি

সরকারের পাশাপাশি মহামারি কোভিড-১৯ বিষয়ে সচেতনতা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে ফ্যামিলি প্ল্যানিং এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এফপিএবি)। ২০২০ সাল  থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩৫ লাখ মানুষকে মাস্ক বিতরণ, এম্বুলেন্স সহায়তা, সচেতনতামূলক সভা-সেমিনার ও পরামর্শ দিয়েছে সংগঠনটি। 

জেলা পর্যায়ে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী, স্থানীয় এফপিএবি সদস্য, মসজিদের ইমাম, সাংবাদিক ও স্থানীয় নেতাদের মধ্যে কোভিড পরীক্ষা এবং প্রাথমিক চিকিৎসার সুবিধা সম্পর্কে সচেতন করেছে তারা। ফ্যামিলি প্ল্যানিং এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (এফপিএবি)-র ঢাকা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সংস্থাটির প্রগ্রাম অফিসার (ইউথ) হোসনে জাহান।

তিনি জানান, কোভিড-১৯ সহ, পরিবার পরিকল্পনা, স্বাস্থ্যহীনতা, অনাকাঙ্খিত গর্ভধারণ, সহিংসতা ও বৈষম্য থেকে মুক্ত যৌনজীবন উপভোগের জন্য যুব-জনগোষ্ঠীর অধিকার সুরক্ষা নিয়ে কাজ করে আসছে এফপিএবি। সংস্থাটির কার্যক্রম শুরু হয়েছিল ১৯৫৩ সালে। সরকার পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রম শুরু করলে এফপিএবি সরকারের সম্পূরক ও পরিপূরক সংস্থা হিসাবে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। বর্তমানে ২৩টি জেলায় ২১টি পূর্ণাঙ্গ ক্লিনিক, ২টি বিশেষ কর্ম ইউনিট, ৭২টি এফডিসি, ২১টি তারার মেলা (যুব বান্ধব ক্লিনিক) ও সিবিডি কার্যক্রমের মাধ্যমে ৫০ লক্ষ জনগনের মধ্যে যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করছে। যার মধ্যে ৫৩ শতাংশ যুব জনগোষ্টি।

হোসনে জাহান আরও বলেন, অনেক সমস্যার মুখোমুখি হলেও লকডাউন চলাকালীন সময়েও সাহসের সাথে কাজ করেছেন সংগঠনের কর্মীরা। এক্ষেত্রে এফপিএবির ২০টি শাখা ক্লিনিক, আধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জামসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতি, স্ক্রিনিং প্রটোকল,কর্মী সুরক্ষা নীতি, কোভিড -১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধ সম্পর্কিত প্রশিক্ষণ এবং সুরক্ষা সামগ্রী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

তিনি বলেন, আমরা এখনও কোভিড-১৯ থেকে পুরোপুরি মুক্ত হতে পারিনি। তুলনামূলক কম হলেও করোন আক্রান্ত হয়ে এখনও মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। বিশেষ করে ৬০ বছরের বেশি মানুষ, গর্ভবতী নারী, দূর্গম এলাকা ও দ্বীপে বসবাসকারী, ৩৫ বছর বা তার চেয়ে বেশি বয়সী ডায়াবটেসি আক্রান্ত, গুরুতর কার্ডিওভাসকুলার রোগ, দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসরে রোগ, দীর্ঘস্থায়ী লভিার বা কডিনি রোগ, ক্যান্সার আক্রান্ত ও টিকাবিহীন মানুষ এখনও আশঙ্কার বাইরে নন। তাই কোভিড থেকে বেচে থাকতে সচেতনতা ও সতর্কতার বিকল্প নেই।

আরএস

Link copied!