Amar Sangbad
ঢাকা রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯

ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ

সভাপতি পদে আলোচনায় সালমান খান প্রান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

নিজস্ব প্রতিবেদক

নভেম্বর ২৭, ২০২২, ০৮:৫৩ পিএম


সভাপতি পদে আলোচনায় সালমান খান প্রান্ত

আগামী ৮ ও ৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৩০তম জাতীয় সম্মেলন। ৮ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন সংগঠনটির গঠনতান্ত্রিক অভিভাবক শেখ হাসিনা। সম্মেলন উপলক্ষে ইতিমধ্যে গঠন করা হয়েছে নির্বাচন কমিশন। সম্মেলনকে সামনে রেখে এরই মধ্যে মাঠেও নেমেছে পদ প্রত্যাশীরা। বিগত দিনে দলের প্রতি ত্যাগ এবং আগামী জাতীয় নির্বাচনে দলের জন্য ভূমিকা রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পদ পেতে নিরলস প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গেও সম্পর্ক তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে পদপ্রত্যাশীরা। এছাড়া সম্মেলন ঘিরে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে মহানগর ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরাও। সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে বিরাজ করছে উৎসাহ-উদ্দীপনা।

জানা গেছে, এবারের সম্মেলনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্লিন ইমেজ, সাংগঠনিকভাবে দক্ষ, সংকটে দলের পাশে থাকা, বিতর্কমুক্ত নেতাদেরই বিবেচনায় রাখছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। এ বিবেচনায় নেতাকর্মীদের মুখে উচ্চারিত হচ্ছে প্রায় দুই ডজন পদপ্রত্যাশীর নাম। তারা ছাত্রলীগের দায়িত্বে থাকা আওয়ামী লীগের চার নেতা এবং আওয়ামী লীগের অন্যান্য প্রভাবশালী নেতাদের কাছেও দৌড়ঝাঁপ করছেন। তাদের মাধ্যমেই প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌঁছাতে চান প্রার্থীরা।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, পদপ্রত্যাশীদের মধ্যে যাদের সাংগঠনিক সক্ষমতা ভালো, রয়েছে ক্লিন ইমেজ, পরিবারের সঙ্গে জামায়াত-বিএনপির কোনও সংশ্লিষ্টতা নেই; অসাম্প্রদায়িক চেতনার অধিকারী তারাই আগামীর নেতৃত্বে আসবে। এছাড়াও যারা শিক্ষার্থীদের কাছে জনপ্রিয় এবং মানবিক কাজ করে আলোচনায় আসতে পেরেছেন, এমন ছাত্রনেতারাও এগিয়ে থাকবেন।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বলছেন, নেতৃত্ব নির্বাচনে কেন্দ্র থেকে যেসব গুনাবলীর কথা বলা হচ্ছে তার অধিকাংশ নিয়েই ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি পদের প্রত্যাশা করছেন সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সালমান খান প্রান্ত। পরিছন্ন ইমেজধারী শান্ত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কাছেও রয়েছেন পছন্দের শীর্ষে। নেতাকর্মীরাও বলছেন, বর্তমান কমিটির বড় কোন পদে না থাকলেও পারিবারিকভাবেই মুজিব আদর্শে নিবেদিতপ্রাণ সালমান খান প্রান্ত বঙ্গবন্ধু পরিবারের প্রতিটি সদস্যের বিভিন্ন দিবসে নেতাকর্মীদের নিয়ে নিয়মিত মিলাদ, দোয়া এবং অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আসছেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও পারিবারিক ঐতিহ্য ধরে রাখতে, মাদকদ্রব্য, চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজিতে কখনো নিজেকে জড়াননি। উত্তরের মাঠের রাজনীতিতে সব সময়ই তার সরব উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়।

জানতে চাইলে সালমান খান প্রান্ত বলেন, দলের জন্য-ছাত্রলীগের জন্য সবসময় কাজ করেছি, ভবিষ্যতেও করব। যতদিন বেঁচে আছি, দলকে সঠিক পথে এগিয়ে নিয়ে যাব। তৃণমূলকে আরো সংগঠিত করে সামনের জাতীয় নির্বাচনের চ্যালেঞ্জ, বিরোধীদলের আন্দোলন ও সরকারের বিপক্ষে অপপ্রচারকে রুখে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠা করাই আমার লক্ষ্য।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বিপ্লবী বাংলার বিপ্লবী সংগঠন ছাত্রলীগ। এর কর্মীরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে এবং মনে লালন করে। ছোটবেলা থেকেই বাপ-চাচাদের হাত ধরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে পথচলা শুরু। যতদিন বেঁচে আছি, দলের অগ্রযাত্রায় কাজ করবো, সকল অপশক্তিকে রুখে আমার নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ করে যাব। তিনি আরও বলেন, ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারীদের বিরুদ্ধে আমি সব সময় সরব বলে প্রতিহিংসার স্বীকার হয়েছি বহুবার।

সালমান খান প্রান্তের পরই একই পদের অন্য প্রত্যাশীরা হলেন- ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ সুমন, রুপনগর থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিঠু, কাফরুল থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রায়হান, ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের ২নং যুগ্ম সম্পাদক রকি, মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেলসহ দুই ডজন পদপ্রত্যাশী।

কেএস 

Link copied!