Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ০২ অক্টোবর, ২০২৩, ১৭ আশ্বিন ১৪৩০

৮০ শতাংশ হজযাত্রীর ভিসা সম্পন্ন

লাল তালিকাভুক্ত হওয়ার শঙ্কা নেই বাংলাদেশের

নিজস্ব প্রতিবেদক

জুন ৭, ২০২৩, ০৮:৫০ পিএম


লাল তালিকাভুক্ত হওয়ার শঙ্কা নেই বাংলাদেশের

সৌদি আরবের বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে ৮০ শতাংশ হজযাত্রীর ভিসা সম্পন্ন হয়েছে। ফলে দেশটির লাল তালিকাভুক্ত হওয়ার শঙ্কা এখন আর নেই।

বুধবার (৭ জুন) ৮০ শতাংশ ভিসা সম্পন্ন করায় হজ এজেন্সিগুলোকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয়, পবিত্র হজ উপলক্ষে বাংলাদেশের কোটা এক লাখ ২২ হাজার ৫৫৮ জন। বুধবার বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ভিসার হার ৮০ দশমিক ৬৩ শতাংশ। এতে বাংলাদেশের ওপর কোনো নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না। এজন্য এজেন্সিগুলোসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ।

অবশিষ্ট ভিসা দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য হজ কার্যক্রম পরিচালনাকারী সব এজেন্সিকে অনুরোধ জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

এর আগে সৌদি সরকারের এক নির্দেশনার পরিপ্রেক্ষিতে গত ৫ জুন সেখানকার বাংলাদেশের হজ অফিস ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে চিঠি পাঠায়। ওই চিঠিতে জানানো হয়, সোমবার (৫ জুন) রাজকীয় সৌদি সরকারের হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে যে, আগামী ৭ জুনের মধ্যে ৮০ শতাংশ ভিসা সম্পন্ন করতে হবে। কয়েকটি দেশের ভিসা প্রাপ্তির সংখ্যা আনুপাতিক হারে কম বিধায় ৭ জুনের মধ্যে ভিসা ৮০ শতাংশ সম্পন্ন না হলে সংশ্লিষ্ট হজ অফিসকে লাল তালিকাভুক্ত করা হবে। এসব কিছুর যাবতীয় দায়ভার সেসব হজ অফিসকে বহন করতে হবে।

এ অবস্থায়, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ৮০ শতাংশ ভিসা প্রাপ্তি নিশ্চিত করা প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে হজ কার্যক্রম পরিচালনাকারী হজ এজেন্সিগুলোকে জরুরিভিত্তিতে সব কার্যক্রম সম্পন্ন করার নির্দেশনা দেওয়ার অনুরোধ জানায় মক্কার বাংলাদেশের হজ অফিস।

একই সঙ্গে সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্ৰণালয়ের আন্তর্জাতিক কো-অপারেশন বিভাগের প্রতিনিধি আল-হাসান আল-মানাখেরাহ সই করা নির্দেশনাটিও দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়, হজ বিষয়ক নানাবিধ চুক্তি কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন হওয়া দেশগুলোর হজ অফিসের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। বিশেষ করে হাজিদের ভিসা ইস্যুর কাজ চূড়ান্তে পৌঁছানো দেশগুলোর হজ অফিসকেও ধন্যবাদ জানাই। তবে কিছু কিছু দেশের হজ অফিস লাল তালিকাভুক্ত হয়েছে। ফলে নানা পদক্ষেপ বাস্তবায়ন ও কার্যক্রম সম্পাদনে বেশ জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। তবে এসব কিছুর যাবতীয় দায়ভার সেসব হজ অফিসের ওপরই বর্তাবে।

নির্দেশনায় বলা হয়, ৭ জুনের মধ্যে ভিসা ইস্যুর ৮০ শতাংশ কাজ সম্পাদন করা চাই। এর ব্যত্যয় ঘটলে সৌদি হজ মন্ত্রণালয় যেকোনো ধরনের কার্যকরী পদদেপ গ্রহণ করতে বাধ্য থাকবে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২৭ জুন পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। গত ২১ মে থেকে শুরু হয়েছে হজ ফ্লাইট। এরই মধ্যে ৬১ হাজার ১১১ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন।

আরএস

 

 

Link copied!