Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ, ২০২৪,

সম্পদের পাহাড় এমপি নিজাম হাজারীর

এস এম ইউসুফ আলী, ফেনী

এস এম ইউসুফ আলী, ফেনী

ডিসেম্বর ৯, ২০২৩, ১০:৩৯ এএম


সম্পদের পাহাড় এমপি নিজাম হাজারীর
ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী। ছবি: ফাইল

জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়ে গত ১৩ বছরে সম্পদের পাহাড় গড়েছে ফেনী-২ আসনের  সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  নিজাম উদ্দিন হাজারী। এর মধ্যে নগদ টাকা সহ তিনি প্রায় ৭৩ কোটি টাকার ও তাঁর স্ত্রী নুরজাহান বেগম নাসরিন প্রায় ৮১ কোটি টাকার সম্পদের মালিক হয়েছেন।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তৃতীয়বারের মতো নৌকার প্রার্থী হয়ে গত ২৮ নভেম্বর নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া তাঁর হলফনামায় তিনি নিজেই এমন তথ্য প্রদান করেছেন।

অথচ, এর আগে ২০১১ সালে নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হলফনামায় নিজাম হাজারী নিজের এবং স্ত্রীর নামে থাকা সম্পদের বিবরণে উল্লেখ করেন, ওই সময়ে তাঁর নিজের নামে ব্যাংকে জমা টাকার পরিমাণ ১০ লাখ আর স্ত্রীর নামে সঞ্চয়পত্র/স্থায়ী আমানত ছিল এক কোটি টাকা। তখন তাঁর কাছে নগদ টাকা ছিল ৫০ হাজার, স্ত্রীর কাছে ছিল ৫০ হাজার টাকা।

হলফনামা অনুযায়ী, ২০১১ সাল পর্যন্ত নিজাম হাজারী ৫০ শতাংশ কৃষি জমি ও ৫০ শতাংশ অকৃষি জমির মালিক। তখন স্ত্রীর নামে কোনো জমি বা ফ্ল্যাট ছিল না। নিজামের একটি মোটর কার থাকার কথা বলা হলেও দাম উল্লেখ করা হয়নি। স্ত্রীর নামে তখন কোনো গাড়ি ছিল না। তবে স্ত্রীর ১০০ তোলা স্বর্ণালংকার ছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সালের ১৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত ফেনী পৌরসভার নির্বাচনে অংশ নিয়ে (প্রথম জনপ্রতিনিধি) মেয়র নির্বাচিত হন নিজাম হাজারী। এর তিন বছরের মাথায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রথমবার ও আট বছরের মাথায় দ্বিতীয়বার আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি ।

গত ১৩ বছর জণপ্রতিনিধি থাকার পর একই আসন থেকে টানা তৃতীয়বার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে আসন্ন ০৭ জানুয়ারি ২০২৪ সালের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন তিনি। এজন্য গত ২৮ নভেম্বর ২০২৩ নির্বাচন কমিশনে আবারও হলফনামা জমা দেন নিজাম হাজারী।

তাতে দেখা যায়, নিজাম হাজারীর বাৎসরিক আয় ৯৩ লাখ ২১ হাজার ৩৯৫ টাকা। তাঁর স্ত্রীর এক কোটি ৪ লাখ ১৩ হাজার ৫৮৫ টাকা। তাঁর নিকট  নগদ ও ব্যাংকে রয়েছে ১০ কোটি ৩৮ লাখ ১১ হাজার ১১৪ টাকা। স্ত্রীর নিকট নগদ ও ব্যাংকে রয়েছে ১৯ কোটি ২৯ লক্ষ ৮২১ টাকা।

এছাড়া নিজাম হাজারীর নিজের বন্ড, ঋণপত্র, স্টক এক্সচেঞ্জে শেয়ার  রয়েছে ৪ কোটি ১৫ লাখ টাকার ও স্ত্রীর নামে রয়েছে ৪ কোটি ১০ লাখ ৫ হাজার টাকার। পোস্টাল, সেভিংস সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়পত্রে স্থায়ী আমানতে নিজাম হাজারীর বিনিয়োগ রয়েছে ১১ কোটি ৯৬ লাখ ১৯ হাজার ২৯১ টাকার ও স্ত্রীর রয়েছে ১৬ কোটি ৪২ লাখ ৯৩ হাজার ২২৫ টাকার।

স্থাবর সম্পদের মধ্যে নিজাম হাজারীর নামে রয়েছে (অর্জনকারী সময়ের মূল্যে ) ৯ কোটি ৪৮ লক্ষ  ৭০ হাজার ২০০ টাকার কৃষি জমি, ৩০ কোটি ৩৭ লক্ষ ১২ হাজার ১২০ টাকার ১টি দ্বিতল বিশিষ্ট ও ২ টি ৬ তলা বিশিষ্ট ভবন, ১ কোটি ৯৯ লক্ষ ৮০ হাজার টাকার (চা-রাবার বাগান ও মৎস খামার), ৩ কোটি ৮৪ লক্ষ ১৯ হাজার ৭০০ টাকার কলেজ ও মসজিদ নির্মাণ।

একইভাবে স্ত্রীর রয়েছে ১৩ কোটি ১২ লক্ষ ৬২ হাজার ৭২৫ টাকা মূল্যের ২টি ফ্ল্যাট, ১টি ৫ তলা বিশিষ্ট ভবন সহ ২৫ শতাংশের মতো অকৃষি জমি, ২ কোটি ৫০ লক্ষ ৩০ হাজার ৫০০ টাকা মূল্যের মৎস খামার ও আরও ৮ কোটি টাকার ব্যবসা।

অপরদিকে, প্রবাসী ভাইয়ের নিকট হতে ফরেন রেমিট্যান্স হিসেবে নিজাম হাজারীর প্রাপ্ত দেখানো হয়েছে ৫৭ লক্ষ ৫ হাজার ৫৭ টাকা।

তাছাড়া হলফনামায় নিজের ৩০ তোলা এবং স্ত্রীর ১০০ তোলা স্বর্ণ থাকার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ফেনীতে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে, এ আসনটি থেকে একাধিকবারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও তৎকালীন ফেনীর গডফাদার হিসেবে পরিচিত (বর্তমানে প্রয়াত) জয়নাল আবেদীন হাজারী ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আর স্থানীয় রাজনীতিতে টিকতে পারেননি। সেই থেকে তাঁরই একসময়ের সহযোগী নিজাম হাজারী এখন এ জনপদে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সর্বেসর্বায় পরিণত হয়েছেন।

এআরএস

Link copied!