community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪,

বোমা হামলার আশঙ্কার মধ্যেও বই মেলায় লেখক-পাঠকের মিলনমেলা

মো. সোহাগ বিশ্বাস

মো. সোহাগ বিশ্বাস

ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৩, ০৯:০৫ পিএম


বোমা হামলার আশঙ্কার মধ্যেও বই মেলায় লেখক-পাঠকের মিলনমেলা

অমর একুশে বইমেলা চলবে আর মাত্র কয়েক দিন। আজ  শেষ ছুটির দিনে  জমে উঠেছে বই বিকিকিনি। বইপ্রেমীদের আগমন, স্টল ও প্যাভিলিয়ন ঘুরে ঘুরে বই কেনায় শৈল্পিকতা ফুটে উঠেছে মেলাজুড়ে। ২৪তম দিনে ছিল যেন বই কেনার প্রতিযোগিতা। দর্শনার্থী ও বইপ্রেমীদের হাতে হাতে বই দেখে ফুটে উঠেছে একুশের চেতনা। এদিন বেশি বিক্রি হয়েছে উপন্যাস, সায়েন্সফিকশন, মোটিভেশন ও গল্পের বই। 

ঐতিহ্য প্রকাশনীর ব্যবস্থাপক আমজাদ হোসেন কাজল বলেন, এবারের মেলা বিগত বছরগুলোর সব সফলতাকে ছাড়িয়ে যাবে। মানুষ যতই ডিজিটাল হোক আর যতই বিশ্বায়ন হোক বইয়ের প্রতি বাঙালির অমোঘ আকর্ষণ এবারের মেলাতেও লক্ষ্য করা গেছে। আমরা যা প্রত্যাশা করেছিলাম তার চেয়ে বেশি প্রাপ্তি ঘটেছে। শাহাবাগ মোড় থেকে টিএসসি, ওদিকে শহিদ মিনার পর্যন্ত ছাড়িয়েছিল বই প্রেমিদের দীর্ঘ লাইন। বইমেলায় নেমেছিল প্রাণের জোয়ার। দুপুরের পর থেকে বাড়তে থাকে মানুষের উপস্থিতি। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামতেই জনারণ্যে পরিণত হয় বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান।

বইপ্রেমীদের আনাগোনা আর ঘোরাফেরায় মুখরিত হয়ে ওঠে মেলা প্রাঙ্গণ। কেউ বই কিনছেন, কেউ হাতে নিয়ে দেখছেন আবার কেউবা প্রিয় লেখকের বই কবে আসবে এ খোঁজ নিচ্ছেন। বরাবরের মতো অনন্যা, কাকলী, তাম্রলিপি, প্রথমা, পাঞ্জেরি প্রকাশনীর প্যাভিলিয়নগুলো ছিল ক্রেতাদের প্রধান আকর্ষণ। পাশাপাশি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের কালী মন্দিরের পাশে শিশু চত্বরেও দেখা যায় শিশুদের ভিড়। এবারের বই মেলায় শিশুদের জন্য এই শিশু কর্নারে ছিল সিসিমপুর সহ শিশুদের জন্য নানা আয়োজন।

বিভিন্ন প্রকাশনীর বিক্রয়কর্মীরা জানান, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, মুজিববর্ষ ও ছুটির দিন বিবেচনায় দর্শনার্থী ও পাঠকের চাহিদা মেটাতে প্যাভিলিয়ন ও স্টলে যথেষ্ট বই মজুদ রাখাসহ সব প্রস্তুতি ছিল। তবে জঙ্গী হামলার হুমকির কারণে  দুপুর পর্যন্ত মেলায় আসা দর্শনার্থীর সংখ্যা ছিল হাতেগোনা। বিকেল থেকে মানুষের উপস্থিতি রাড়তে থাকে।

এদিকে মেলায় বোমা হামলার হুমকি অমর একুশে বইমেলায় বোমা হামলার হুমকি দিয়ে ডাকযোগে চিঠি পাঠিয়েছে একটি জঙ্গি সংগঠন। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক বরাবর পাঠানো চিঠিতে নিজেদেরকে আনসার আল ইসলাম বলে দাবি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ১১টার দিকে বাংলা একাডেমির নিরাপত্তা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার ডাকযোগে চিঠিটি আসে। মাওলানা মো. সাইদুল ইসলাম সই করা চিঠিতে অমর একুশে বইমেলায় বোমা হামলার হুমকি দেয়া হয়।  

এঘটনায় বাংলা একাডেমির করা জিডিটি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে জিডির তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার এসআই মো. জব্বার।

বোমা হামলার এই হুমকির পর থেকে বইমেলায় বোমা আতঙ্ক বিরাজ করছে। বইমেলার শুরুর থেকে শেষ শুক্রবারে বাড়তি নিরাপত্তা দেখা গেছে। সকাল থেকে র‍্যাবের ডগ স্কয়াড দিয়ে পুরো মেলা মাঠ চেক করা হয়েছে। প্রবেশ পথে বাড়তি নিরাপত্তা দেখা গেছে। মেলা মাঠেও  বিপুল সংখ্যক সাদাপোশাকের পুলিশ ও গোয়েন্দা সদস্যদের দেখা গেছে। সিসি ক্যামেরার মনিটরিং বাড়ানো হয়েছে। বোমা হামলার এই আতংকে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও তথ্য মন্ত্রী হাসান মাহমুদের বই মেলায় স্টল ও মোড়ক উন্মোচন স্থগিত করা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত বইমেলায় তেমন লোকজন চোখে না পড়লেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে সকল আশংকা উপেক্ষা করে বইমেলার শেষ ছুটির দিনে লোকে লোকারণ্য হয় মেলা প্রাঙ্গন।

বই মেলায় ঘুরতে আসা নতুন লেখিকা আরেফিন শায়ন্তি লিমা জানান, কোন হুমকিই আমাদের একুশের চেতনা থেকে সরাতে পারবে না। আমরা সকল হুমকিকে জয় করেই অসাম্প্রদায়িক এক বাংলাদেশের দিকে এগোচ্ছি।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বইমেলা এলাকায় গিয়ে লাইন দেখা যায়। বইমেলার লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা  আকবর হোসেন জঙ্গি হামলার প্রসঙ্গে বলেন, খবরটা শুনেছি। তবে এই এলাকায় যে রকম নিরাপত্তাব্যবস্থা দেখলাম তাতে ভয় লাগছে না। সব কিছু স্বাভাবিক মনে হচ্ছে।

দীর্ঘলাইনে রয়েছে শিশু-কিশোররাও। কেউ বাবা, কেউ বা-মায়ের হাত ধরে অপেক্ষা করছে বইমেলায় ঢুকতে। চোখে-মুখে তাদের মেলায় আসার উচ্ছ্বাস।

শুক্রবারে নতুন বই

মেলার শেষ শুক্রবারে নতুন বই এসেছে ২৩৯ টি। তার মধ্যে গল্প ২৩ উপন্যাস ২৬ প্রবন্ধ ১৭ কবিতা ৮৬ গবেষণা ২ ছড়া ১০ শিশুসাহিত্য ৩ জীবনী ৭ রচনাবলি ৫ মুক্তিযুদ্ধ ১ নাটক ২ বিজ্ঞান ৪ ভ্রমণ ৩ ইতিহাস ৫ রাজনীতি ২ চি:/স্বাস্থ্য ২ বঙ্গবন্ধু ৩ রম্য/ধাঁধা ২ ধর্মীয় ৫ অনুবাদ ৮অভিধান ২ সায়েন্স ফিকশন ৪ অন্যান্য ১৭

মূলমঞ্চ 

বিকাল ৪:০০টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় আধুনিকতা, উত্তর-আধুনিকতা ও পরবর্তীকালের সাহিত্যতত্ত্ব শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।

প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মাসুদুজ্জামান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন নিরঞ্জন অধিকারী, এজাজ ইউসুফী, বিপ্লব মোস্তাফিজ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাশিদ আসকারী। অমর একুশে বইমেলার ২৪তম দিন মেলা শুরু হয় সকাল ১১টায়, চলে রাত ৯:০০টা পর্যন্ত। সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত মেলায় ছিল শিশুপ্রহর।  শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি ও সংগীত প্রতিযোগিতার পুরস্কার প্রদান  সকাল ১০:৩০টায় শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন, আবৃত্তি ও সংগীত প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এবি/আরএস

Link copied!