Amar Sangbad
ঢাকা শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২৪,

‘রফিকুল ইসলাম মাদানী’কে ওয়াজ করতে না দেওয়ায় পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা-ভাঙচুর

আমার সংবাদ ডেস্ক:

আমার সংবাদ ডেস্ক:

ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪, ০৯:০৪ পিএম


‘রফিকুল ইসলাম মাদানী’কে ওয়াজ করতে না দেওয়ায় পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা-ভাঙচুর
ছবি: সংগৃহীত

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বাদাঘাটের বাজার জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে রফিকুল ইসলাম মাদানির ওয়াজ করার কথা ছিল। এই মাহফিলের ওয়াজ শুনতে বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার শ্রোতা মহল জড়ো হয়েছেন। হঠাৎ মাদানী হুযুরকে ওয়াজ করতে না দেওয়ায় পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়িতে ঘটনাটি ঘটে।

এ সময় পুলিশ ২৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যসহ ২০ জন আহত হয়েছেন। ঘটনার পর-পর পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ জনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় আহতরা হলেন, কনস্টেবল সালাহ উদ্দিন, মোহাম্মদ ওসমানসহ ২০ জন। অন্য আহতদের নাম পাওয়া যায়নি। এই ঘটনার পর থেকে এলাকা থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। সেজন্য পুলিশ কঠোর অবস্থায় রয়েছে।

আটককৃতরা হল,উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়ন মাহারাম গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে মোজাম্মিল হক (৩৩), কাশতাল গ্রামের মৃত তবারক ইসলামের ছেলে রায়হান মিয়া (৩০), পইলানপুর গ্রামের মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে বশির আহমেদ (৩৮), নাসির আহমেদ (৩১), বাদাঘাট গ্রামের মোশাররফ হোসেন (২০)।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে ও খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাদাঘাট বাজার জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে হিলফুল ফুযুল সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত ওয়াজ মাহফিলে মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানি ওয়াজ করতে আসবেন। তার ওয়াজ শুনতে বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার মানুষ জড়ো হয়।

পরে রাত ১২টায় মাইকে জানানো হয় তিনি আসতে পারবেন না ও ওয়াজ করতে পারবেন না। এতে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে মাইকে ঘোষণা করা হয় তিনি আসতে পারবেন না আইনি জটিলতার কারণে। আজকের মতো মাহফিলও শেষ। আপনারা নিজ নিজ বাড়িতে চলে যান। এ সময় উত্তেজনা সৃষ্টি হলে সবাইকে শান্ত থাকার জন্য আহ্বান জানান সংশ্লিষ্টরা। পরে অনেকেই নিজ নিজ বাড়িতে চলে গেলেও উত্তেজিত জনতা মিছিল বের করে।

এদিকে পুলিশ জানায়, উত্তেজিত জনতা পুলিশের বিরুদ্ধে নানা স্লোগান তুলে বিক্ষোভ মিছিল করে। এক পর্যায়ে মিছিল থেকে বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়িতে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হলে পুলিশ ৩০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এ ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যসহ ২০ জন আহত হন। 

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ যুবককে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে ফাঁড়িতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

খবর পেয়ে তাহিরপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ২ রাউন্ড টিয়ারশেল ও ২৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। ৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করবে বলে তিনি আরও জানান।

বিআরইউ

Link copied!