Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে হাবিপ্রবি হবে পাওনিয়ার’

হাবিপ্রবি প্রতিনিধি

হাবিপ্রবি প্রতিনিধি

নভেম্বর ২৩, ২০২২, ০৬:১৯ পিএম


স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে হাবিপ্রবি হবে পাওনিয়ার’

ক্যাশলেস পেপারলেস এবং স্মার্ট হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল সার্ভিস এক্সিলারেটর, এটুআই, আইসিটি বিভাগের সহযোগিতায় ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি এস্যুরেন্স সেল (আইকিউএসি) এর আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষক—কর্মকর্তাগণের জন্য “ডিজিটাল স্ট্রেটেজি ডিজাইন ল্যাব (ডিএসডিএল)” বিষয়ক ৩ দিনব্যাপী কর্মশালা আজ সমাপ্ত হয়েছে।

সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আইকিউএসি কনফারেন্স রুমে উক্ত কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব জনাব এন. এম. জিয়াউল আলম।

সভাপতিত্ব করেন হাবিপ্রবির ভাইস—চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান এবং অনলাইনে যুক্ত ছিলেন যুগ্ম সচিব ও আইসিটি বিভাগের এটুআই প্রকল্পের পরিচালক জনাব ড. দেওয়ান মোঃ হুমায়ুন কবীর। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. বিকাশ চন্দ্র সরকার, চীফ ই—গভর্ণেন্স স্টে্রটেজিস ডিজিটাল সার্ভিস ফ্যাসিলারেটর জনাব সরকার জাহিদ শেখ। কর্মশালায় আইসিটি বিভাগ থেকে আগত অতিথিগণ রিসোর্স পার্সন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই কর্মশালায় অংশগহণ করা শিক্ষক—কর্মকর্তাগণের মধ্যে থেকে সংশ্লিষ্ট গ্রুপের প্রতিনিধিগণ স্লাইডের মাধ্যমে নিজ নিজ গ্রুপের কর্মকাণ্ড উপস্থাপন করেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন. এম. জিয়াউল আলম বলেন, আপনাদের ক্যাশলেস পেপারলেস, স্মার্ট ক্যাম্পাস হিসাবে রূপান্তরের উপস্থাপনাগুলো অনেক ভালো লেগেছে। এগুলো বাস্তবায়নে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা ইতোমধ্যেই স্মার্ট বাংলাদেশ মাস্টার প্ল্যান তৈরি করেছি যেখানে কৃষি হবে স্মার্ট কৃষি, মানুষের স্বাস্থ্যসেবা হবে স্মার্ট স্বাস্থ্য। এই স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আন্তরিকতার সাথে এগিয়ে এসেছে এটা আমাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট এবং সকলের এই আন্তরিকতা ও অংশগ্রহণে হাবিপ্রবি স্মার্ট বাংলাদেশ বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা রাখবে। পরিশেষে তিনি এধরনের উদ্যোগের জন্য হাবিপ্রবির ভাইস—চ্যান্সেলর মহোদয়কে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে ভাইস—চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান বলেন, মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর ঘোষণার পর থেকেই আমরা বিভিন্ন কর্মশালার আয়োজন করি। আমরা সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছিলাম যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে প্রোগ্রামটি সফলতা পেয়েছে। আমরা শুরু থেকেই পুরো বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখেছি। আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগেই এ বিশ্ববিদ্যালয়ে আংশিক হলেও ক্যাশলেস, পেপারলেস, মডেল হাবিপ্রবি প্রোগ্রামটির ইমপ্লিমেন্টেশন সম্পাদন হবে বলে আমরা প্রত্যাশা করছি।

এসএম

Link copied!