community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪,

আবাসিক হলে বিদ্যুতের দাবিতে উপাচার্য ভবনের সামনে অবস্থান

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

মে ১৯, ২০২৪, ০৫:২১ পিএম


আবাসিক হলে বিদ্যুতের দাবিতে উপাচার্য ভবনের সামনে অবস্থান

‘বিদ্যুৎ বিদ্যুৎ বিদ্যুৎ চাই, হলে হলে বিদ্যুৎ চাই’ এ স্লোগানে মুখরিত ক্যাম্পাস। বিদ্যুতের দাবিতে এবার উপাচার্য ভবনের সামনে অবস্থান নিয়েছে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) আবাসিক হলের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

রোববার বেলা ৩টার দিকে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোর কয়েক শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা যায়, গত কয়েকদিন যাবৎ বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে বিদ্যুৎ থাকছে না। এতে মাত্রাতিরিক্ত গরমে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে যাচ্ছে। এমনকি দিনের বেশিরভাগ সময় স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু অ্যাকাডেমিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন, অমর ২১শে ফ্রেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনে বিদ্যুৎ থাকছে না। যত সময় বিদ্যুৎ থাকছে তা পর্যাপ্ত পরিমাণ না। বিদ্যু বিভ্রাটের কারণে নিয়মিত শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করানো সম্ভব হচ্ছেনা বলে জানা যায়। এতে শিক্ষার্থীরা বাধ্য হয়ে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

অবস্থান কর্মসূচি সম্পর্কে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সোহাগ বলেন, তীব্র গরমে আবাসিক হলে থাকা যায় না। গণরুমগুলো যেন গণকবরে পরিণত হয়ে গেছে। শিক্ষার্থীরা রুমের মধ্যে থাকতে পারছে না। বাধ্য হয়ে তারা দিনের বেশিরভাগ সময় গাছতলা কিংবা ছায়াযুক্ত স্থানে বসে বসে সময় পাড় করে। এভাবে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল চলতে পারেনা বলে জানা তিনি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দলিলুর রহমান বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রান্সফর্মারের ধারণক্ষমতা কম। একসাথে এতগুলো জায়গায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করলে ট্রান্সফর্মার নষ্ট হয়ে যাবে। একবার ট্রান্সফর্মার নষ্ট হয়ে গেলে এটা সারাতে অনেক সময় লাগবে। সেজন্য আমরা যতটুকু বিদ্যুৎ পাচ্ছি সেটা প্রতিটি জায়গায় অল্প অল্প করে সরবরাহ করছি।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীরা বিদ্যুতের অভাবে কষ্ট পাচ্ছে। এটা আমরা অনুভব করছি। সেজন্য আমরা খুব দ্রুত এবিষয়ে বিকল্প ব্যবস্থা নিচ্ছি। আশা করি খুব দ্রুত ব্যবস্থা করতে পারবো।

ইএইচ

Link copied!