Amar Sangbad
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪,

তারেক-জোবায়দার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য অব্যাহত, সাক্ষ্য চলাকালে হট্টগোল

আদালত প্রতিবেদক

আদালত প্রতিবেদক

মে ৩০, ২০২৩, ০৭:৩০ পিএম


তারেক-জোবায়দার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য অব্যাহত, সাক্ষ্য চলাকালে হট্টগোল

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছেন এ মতিন এন্ড কোং এর চার্টার্ড একাউন্ট্যান্ট এ.কে আব্দুল মতিন।

মঙ্গলবার (৩০ মে) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. আছাদুজ্জামানের আদালতে তারা সাক্ষ্য দেন। এরপর আদালত পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য বুধবার (৩১ মে) দিন ধার্য করেন। এ মামলায় এখন পর্যন্ত ৫৬ জন সাক্ষীর মধ্যে সাতজনের সাক্ষ্য শেষ হয়েছে।

এদিন সাক্ষ্য গ্রহণের সময় এজলাসে আইনজীবীদের মাঝে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়েছে। দুপুর ২ টার পর এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের সময় আওয়ামী ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের হট্টগোল শুরু  হয়। এসময় বিচারক এজলাস ছেড়ে চলে যান। হট্টগোলের এক পর্যায়ে থেমে থেমে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

পরে ৫ টা ৫০ মিনিটের দিকে বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের ধাওয়া দিয়ে এজলাস থেকে বের করে দেন আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা। এসময় কয়েকজন আইনজীবী আহত হন। এরপর সন্ধ্যা ৬টার দিকে বিচারক এজলাসে উঠে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন আইনজীবী জানান, সাক্ষ্য গ্রহণের সময় এজলাসের ভিতরে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনার সূত্রপাত হয়। এসময় বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের কয়েকজন বিভিন্ন ¯েøাগান দেয়া শুরু করেন। এরপর আদালতের বাইরে অতিরিক্ত পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। এদিকে আদালতের বাইরে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন ¯েøাগান দিতে থাকেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ঘোষিত আয়ের বাইরে চার কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার মালিক হওয়া এবং সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত-আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কাফরুল থানায় এ মামলা করেন দুদকের উপ-পরিচালক জহিরুল হুদা।

মামলায় তারেক রহমান, জোবায়দা রহমান ও তারেক রহমানের শাশুড়ি ইকবাল মান্দ বানুকে আসামি করা হয়। ২০০৮ সালে তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। এ মামলায় ইকবাল মান্দ বানুকে মামলা হতে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এর আগে ২০২২ সালের ১ নভেম্বর অভিযোগপত্র আমলে তারেক রহমান ও জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। বর্তমানে তারা পলাতক। গত ২০২৩ সালের ১৩ এপ্রিল তারেক-জোবায়দার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন।

এইচআর
 

Link copied!