Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪,

রাজধানীর ১৩ স্পটে আজ বিএনপির গণমিছিল

মো. মাসুম বিল্লাহ

ডিসেম্বর ৩০, ২০২২, ১০:৩৪ এএম


রাজধানীর ১৩ স্পটে আজ বিএনপির গণমিছিল

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারসহ ১০ দফা আদায়ে সমমনা রাজনৈতিক দলগুলো নিয়ে শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) রাজধানীতে বিএনপির গণমিছিল ১৩টি স্পট থেকে বের করা হবে। মূল মিছিল শুরু হবে দুপুর আড়াইটায় কাকরাইলের নাইটিংগেল মোড় থেকে। 

নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিএনপির গণমিছিল মগবাজার গিয়ে শেষ হবে। সমমনা দলগুলোর মধ্যে ১২ দল বিজয়নগরে, পুরানা পল্টনে ১১ দল, গণতন্ত্র মঞ্চ প্রেস ক্লাবের সামনে ও এলডিপি পান্থপথ থেকে মিছিল বের করবে। পৃথক মিছিল বের করবে জামায়াতে ইসলামীও। গণমিছিল থেকে দেওয়া হবে নতুন কর্মসূচি।

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চে থাকবেন শুধু বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। সেখানে তিন জন ভাইস চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি উপস্থিত থাকবেন এবং বক্তব্য রাখবেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

এছাড়া মূলদল, অঙ্গ ও সহযোগী এবং পেশাজীবী সংগঠনের জন্য মিছিলের স্থান নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। সার্বিকভাবে সমন্বয় করবেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন।

বিএনপি সূত্র জানায়, নাইটিঙ্গেল মোড়ে গণমিছিলের সম্মুখে থাকবে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল। তারপরে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি। এখানে সমন্বয় করবেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুর রশিদ হাবিব। একইস্থানে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির গণমিছিলের সমন্বয় করবেন আমিনুল হক ও হায়দার আলী লেলিন। এরপর নয়াপল্টন রোডে ঢাকা ব্যাংকের সামনে ছাত্রদলের গণমিছিল সমন্বয় করবেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ইকবাল হোসেন শ্যামল, আনন্দ ভবন কমিউনিটি ভবনের সামনে কৃষকদলের মিছিলে সমন্বয় করবেন কেন্দ্রীয় নেতা দুলাল হোসেন।

স্বেচ্ছাসেবক দলের মিছিলের সমন্বয় করবেন ওমর ফারুক শাফিন, বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের পাশে হোটেল ভিক্টোরির সামনে পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা দলের মিছিলে সমন্বয় করবেন রবিউল ইসলাম রবি। বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অন্যান্য নেতৃবৃন্দের মিছিল সমন্বয় করবেন সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ ও সহসাংগঠনিক সম্পাদক বেনজীর আহমেদ টিটো।

কড়াই গোস্তের সামনে যুবদলের মিছিল সমন্বয় করবেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা বেলাল আহমেদ। পল্টন চায়না মার্কেটের সামনে ঢাকা জেলা বিএনপির মিছিল সমন্বয় করবেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা মশিউর রহমান বিপ্লব। জোনাকি হলের সামনে শ্রমিক দলের মিছিলে সমন্বয় করবেন কেন্দ্রীয় নেতা সালাউদ্দিন ভুইয়া শিশির। পল্টন থানার উল্টো দিকে মৎস্যজীবী দল, তাঁতী দল ও ওলামা দল এবং জাসাসের মিছিলে সমন্বয় করবেন আমিরুজ্জামান খান শিমুল ও শেখ মো. শামীম। ফকিরাপুল ও দৈনিক বাংলা থেকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির মিছিলে সমন্বয় করবেন কেন্দ্রীয় নেতা কাজী রওনাকুল ইসলাম টিপু।

উল্লিখিত স্পটে নেতাকর্মীরা জমায়েত হওয়ার পর সম্মিলিতভাবে গণমিছিল শুরু হয়ে মগবাজার মোড়ে গিয়ে শেষ হবে।

জানতে চাইলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, ১৩ টি ভাগে মিছিলে সব অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশগ্রহণ করবেন। ইতিমধ্যে দলের ভাইস চেয়ারম্যান, উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, যুগ্ম মহাসচিব, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য সংশ্লিষ্ট স্পটে দায়িত্ব পালন করবেন। এ বিষয়ে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও মাঠে থাকবে সমমনা দলগুলোও : যুগপৎ আন্দোলনের কর্মসূচি পরিচালনার জন্য লিয়াজোঁ (সমন্বয়) কমিটি করেছে বিএনপি, এলডিপি ও গণতন্ত্র মঞ্চ। নিজ নিজ দল ও জোটের পক্ষ থেকে লিয়াজোঁ কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করেছে। বিএনপির কর্মসূচিতে সমর্থন জানিয়ে অংশ নেবে নবগঠিত ১২-দলীয় জোট ও ১১ দলের সমন্বয়ে জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট ও ৭ দলের সমন্বয়ে গড়ে ওঠা গণতন্ত্র মঞ্চ।

রাজধানীর মোট ছয়টি স্পট থেকে দল ও জোটগুলো পৃথক গণমিছিল বের করবে।

জামায়াতে ইসলামীও অভিন্ন দাবিতে শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩টায় রাজধানীর বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট থেকে গণমিছিল করবে। বুধবার এক বিবৃতিতে এই কর্মসূচির বিষয়ে ডিএমপির সহযোগিতা কামনা করেছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এ টি এম মাছুম।

এলডিপি বিকাল ৩টায় রাজধানীর পূর্ব পান্থপথের এলডিপি কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিল বের করবে দলটি। মিছিলটি মালিবাগ মোড়ে গিয়ে শেষ হবে। গণতন্ত্র মঞ্চের উদ্যোগে সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশের পর গণমিছিল বের করা হবে।

যুগপৎ আন্দোলনের অংশ হিসেবে গণমিছিলে অংশ নেবে ১২-দলীয় জোট। তারা বিজয়নগর পানির ট্যাংকি এলাকা থেকে গণমিছিল শুরু করবে। এ ছাড়া রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড় থেকে পৃথকভাবে গণমিছিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১১ দলের সমন্বয়ে গঠিত নতুন জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট।

টিএইচ

Link copied!