Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

১৯৯২ সালের পর আবারও মেলবোর্নে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান

আহমেদ হৃদয়

আহমেদ হৃদয়

নভেম্বর ১০, ২০২২, ০৭:১৫ পিএম


১৯৯২ সালের পর আবারও মেলবোর্নে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান
  • ১৯৯২ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ইংল্যান্ড-পাকিস্তান
  • একই ভেন্যু মেলবোর্নে এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালেও মুখোমুখি হবে এ দুই দল
  • ৯২’ সালে ইংল্যান্ডকে ২২ রানে হারিয়ে ইমরান খানের নেতৃত্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান
  • ১৮ বলে ৩৩ রান ও তিন উইকেট নিয়ে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছিল ওয়াসিম আকরাম
  • টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দু-দলই একবার করে শিরোপার স্বাদ পেয়েছে

আগামী ১৩ নভেম্বর বিশ্ব পাবে টি-টোয়েন্টির নতুন চ্যাম্পিয়ন। ইংল্যান্ড নাকি পাকিস্তান; কে হবে এবারের চ্যাম্পিয়ন! অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ইংল্যান্ড-পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে ফয়সালা হবে আগামী রোববার। 

এই মেলবোর্নেই জড়িয়ে আছে ইংল্যান্ড-পাকিস্তানের স্মৃতি। স্মৃতিটা পাকিস্তানের জন্য সুখকর হলেও ইংলিশদের জন্য দুঃখের। ১৯৯২ সাল; তখন পাকিস্তানের অধিনায়ক ছিলেন ইমরান খান। 

তার নেতৃত্বেই এই মেলবোর্নে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছিল পাকিস্তান। ১৯৯২ সালে ওডিআই বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ইমরান খান। ১১০ বলে ৭২ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছিলেন অধিনায়ক ইমরান খান। 

জাবেদ মিঁয়াদাদও পেয়েছিলেন হাফসেঞ্চুরির দেখা। ৯৮ বলে ৫৮ রান এসেছিল তার ব্যাট থেকে। ৩৫ বলে ৪২ রান করেছিলেন ইনজামাম উল হক। ১৮ বলে ৩৩ রানে অপরাজিত ছিলেন ওয়াসিম আকরাম। পাশাপাশি ৩টি উইকেট নিয়ে ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হয়েছিলেন ওয়াসিম।

নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৪৯ রানেই থেমেছিল পাকিস্তানের ইনিংস। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২২৭ রানেই অলআউট হয়েছিল ইংলিশরা। ২২ রানে জিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান।

সেই ১৯৯২ সালের পর আবারও ফাইনালে মুখোমুখি হবে এই দুই দেশ। মঞ্চটা একই; বদলায়নি ভেন্যু; শুধু ফরম্যাটটা ভিন্ন। সেই মেলবোর্ন; সেই বিশ্বকাপ; শুধু ৫০ ওভারের জায়গায় এবার ২০ ওভার। তাতে কী! ৯২’এর সেই স্মৃতিটা কী আবারও ফিরিয়ে আনতে পারবে পাকিস্তান! নাকি এবার বদলা নিবে ইংলিশরা।

পাকিস্তানে ইমরান খানের জায়গায় বাবর আজম; ইংল্যান্ডে গ্রাহাম গুচের জায়গায় জস বাটলার। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুইবার ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল পাকিস্তান। সেই দুইবারই হেরেছিল পাকিস্তান। এদিকে দু-দলই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একবার করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। 

২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন হয় পাকিস্তান। তার পরের বছরই অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড। মেলবোর্নের মাঠে টি-টোয়েন্টির ইতিহাস বলছে; আগে ব্যাট করে এই মাঠে ম্যাচ জেতার রেকর্ড ৩৩.৩ শতাংশ। পরে ব্যাটিং করে এই মাঠে ম্যা জেতার রেকর্ড ৫৮.৩ শতাংশ। 

সেক্ষেত্রে এখানে টার্গেট নিয়ে খেলা দল সুবিধা বেশি পেয়ে থাকে। তবে এখানে ফাস্ট বোলারদের চেয়ে চায়নাম্যান এবং লেগস্পিনাররাই বেশি সুবিধা পেয়ে থাকে। 

লেগস্পিনারদের ইকনোাম রেট যেখানে সাড়ে ছয়; ফাস্ট বোলারদের ইকনোমি রেট সেখানে ৭। চলতি বছরে এই মাঠে প্রথম ইনিংসের গড় রান ১৭০। চলমান বিশ্বকাপেও এই মাঠে পাকিস্তানের দেয়া ১৫৯ রান চেজ করে ম্যাচ জিতেছে ভারত।

টিএইচ

Link copied!