Amar Sangbad
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪,

বাকেরগঞ্জে এমপির হস্তক্ষেপে প্রাণ ফিরে পেল উপজেলা পরিষদ

বাকেরগঞ্জ (বরিশাল) প্রতিনিধি

বাকেরগঞ্জ (বরিশাল) প্রতিনিধি

জুন ১৩, ২০২৪, ০৯:৪১ পিএম


বাকেরগঞ্জে এমপির হস্তক্ষেপে প্রাণ ফিরে পেল উপজেলা পরিষদ

বরিশালের বাকেরগঞ্জে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান রাজিব আহম্মদ তালুকদার ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের দ্বন্দ্বের অবসান ঘটালেন সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) আবদুল হাফিজ মল্লিক।

অবশেষে তার হস্তক্ষেপে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানদের দ্বন্দ্বের অবসান ঘটানোয় প্রাণ ফিরে পেয়েছে বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ।

সূত্রে জানা যায়, গত ১০ জুন বাকেরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভা হওয়ার কথা থাকলেও সমন্বয়হীনতা ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ এনে সেই সভা বর্জন করেন সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) আবদুল হাফিজ মল্লিক সমর্থিত ১২ ইউপি চেয়ারম্যান।

ওইদিন উপজেলা পরিষদের ১৮ জন সদস্যের মধ্যে উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত দুইজন ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলার ১২ জন ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১৪ জন সদস্য অনুপস্থিত ছিলেন। যে কারণে কোরাম সংকটের কারণে উপজেলা পরিষদের সমন্বয় সভা হয়নি।

এমনকি কোরাম সংকটের কারণে উপজেলা পরিষদের আর্থিক খাতসহ বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করাও যায়নি। উপজেলা পরিষদের উন্নয়নের জন্য ৫০ লক্ষ টাকার বরাদ্দ বাতিল হওয়ার উপক্রম হয়েছিল।

অবশেষে সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) আবদুল হাফিজ মল্লিকের হস্তক্ষেপে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানদের দ্বন্দ্বের অবসান ঘটিয়ে মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সকল সদস্যের উপস্থিতিতে উপজেলার উন্নয়নের জন্য ৫০ লক্ষ টাকার বাজেটের রেজুলেশন গৃহীত হয়।

দাঁড়িয়াল ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম হাওলাদার জানান, সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নকাজের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করার ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।কিন্তু নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান রাজিব আহম্মদ তালুকদার তাদের সাথে কোন ধরনের আলোচনা ও সমন্বয় না করেই রোববার এককভাবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। এ কারণেই ওই সভা বর্জন করেছিলেন ইউপি চেয়ারম্যানরা। পরবর্তীতে সংসদ সদস্যের মধ্যস্থতায় বৃহস্পতিবার তিনিসহ ১৪ জন ইউপি চেয়ারম্যান ও দুইজন নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান মাসিক সমন্বয় সভায় অংশগ্রহণ করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুর রহমান বলেন, নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানদের সাথে ভুল বুঝাবুঝির কারণে ১০ জুন মাসিক সমন্বয় সভা হওয়ার কথা থাকলেও কোরাম সংকটের কারণে ওইদিন সভা হয়নি। সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার মাসিক সভায় দুইজন নির্বাচিত ভাইস-চেয়ারম্যান ও ১৪ জন ইউপি চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান রাজিব আহম্মদ তালুকদার বলেন, সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে মাসিক সভায় ইউপি চেয়ারম্যানরদের উপস্থিতি কাজে প্রেরণা যুগিয়েছে। নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়েছে। ভবিষ্যতে বাকেরগঞ্জ উপজেলার উন্নয়নে সংসদ সদস্যের সাথে একাত্ম হয়ে কাজ করবো।

ইএইচ

Link copied!