Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২২, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

ধর্ম নিয়ে ফেসবুকে বিরুপ মন্তব্য: বেরোবি শিক্ষার্থী আটক

ইভান চৌধুরী, বেরোবি প্রতিনিধি

ইভান চৌধুরী, বেরোবি প্রতিনিধি

সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২, ০২:১৮ পিএম


ধর্ম নিয়ে ফেসবুকে বিরুপ মন্তব্য: বেরোবি শিক্ষার্থী আটক

ইসলাম ধর্ম নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) সুজন পাল নামে এক শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ভোর রাতে ওই শিক্ষার্থীকে তার নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়।

আটক সুজন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। সে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার ১০ নং মোহনপুর ইউনিয়নের বড়হাট পালপাড়া গ্রামের মৃত বধিরাম পালের (চমৎকার পাল) ছেলে।

রংপুর মেট্রোপলিটন তাজহাট থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ কে এম নাজমুল কাদির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগে উত্তেজনা তৈরি হয়। পরে তাকে (সুজন পাল) আটক করা হয়েছে। এখনো তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা হয়নি।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানী বলেন, ‘ধর্ম বিষয়টি স্পর্শকাতর। ওই শিক্ষার্থী ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। বিষয়টি নিয়ে শুক্রবার রাতে উত্তেজনা তৈরি হলে তাকে আটক করা হয়।’

পরিস্থিতি সামলা দিতে সুজন পালকে আটক করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে তাকে সেফ করার জন্য আটক করা হয়েছে। আটক না করলে আজ হয়তো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিন্ন পরিস্থিতি তৈরি হতো।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান ড. তুহিন ওয়াদুদ বলেন, ‘শুনেছি সে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য এক ছাত্রীর একটি বিশ্লেষণমূলক সমালোচনায় ধর্ম নিয়ে সরাসরি কটাক্ষ করেছে। এ কারণে তাকে আটক করা হয়েছে। আমরা খোঁজখবর রাখছি।’

জানা যায়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একই বিভাগের শিক্ষার্থী তার (সুজন পাল) বান্ধবী সেজুতি মুমু ইসলাম ধর্ম ও সনাতন ধর্ম নিয়ে সহনশীলতামূলক একটি পোস্ট করেন তার ফেসবুক ওয়ালে। তার পোস্টে ইসলাম ধর্মকে কটাক্ষ করে আপত্তিকর মন্তব্য করেন শিক্ষার্থী সুজন পাল।

সুজন পাল তার মন্তব্যে লেখেন, আরে ইসলাম যে কতটা জঙ্গীবাদী তা তাদের ধর্মই বলে দেয়। আর এ জন্যই ইসলাম ধর্ম থেকে যতসব জঙ্গী সৃষ্টি হয়। কারণ তাদের ধর্ম তা ওই জঙ্গী মনোভাবই তাদের করে তোলে। আর এজন্য দেখ কতই অত্যাচারিত হচ্ছে মুসলিমরা। একটা বিষয় দেখিস হিন্দুদের সাথে খ্রিস্টান, বৌদ্ধ কারোই কোনো সমস্যা নেই বা এদের তেমন দ্বন্দ্ব বাজে না।

কিন্তু সনাতন ধর্মের সাথেও ইসলামের সম্পর্ক খারাপ, বৌদ্ধ ধর্মের সাথেও আর খ্রিস্টান ধর্মের সাথেও। আর তাই আজকে ইসরাইল, চীন, মায়ানমার, ভারত, নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কাসহ সব দেশে মুসলিমরা নিপীরিত। কারণ কোনো ধর্মই তাদের দেকতে পারেনা। কারণ যত অনৈতিক কাজ সব তাদের কাছে নৈতিক। ৩ টা বিয়ে করা নৈতিক, ১২টা বাচ্চা নেয়া নৈতিক। সালার যতসব মূর্খ বাস করে ইসলাম ধর্মে। আর তাই দেখ সালারা বিশ্বের ভালো ভালো জায়গায় অবস্থান করতে পারেনা।

এরা মনে করে যে জনসংখ্যা বাড়ালেই বুঝি ওদের সাথে কে আর পারে? আর তাই ছোট্ট একটা দেশ ইসরাইলের সাথে পেরে উঠছেনা। কি আর বলবো। এত মূর্খ্য এই বেটারা সব জানে, জেনেও না জানার ভান করে। জানে যে ইসলাম একটা নতুন ধর্ম, তবুও মানেনা। কারণ তাদের রক্ত গরম। কিন্তু কাজের সময় সালারা পারেনা। ওই গরমে সার।

তার (সুজন) কমেন্ট এর স্ক্রিনশট বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরে। মুহুর্তেই ওই স্ক্রিনশট ভাইরাল হলে ওই শিক্ষার্থীর বিচারের দাবিতে ব্যাপক সমালোচনা ও ক্যাম্পাসে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে তাৎক্ষণিকভাবে আজ ভোর রাতে তাকে আটক করে তাজহাট থানা পুলিশ।

এআই

Link copied!