community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪,

ডা. নুসরাত জাহানের পথচলা

মো. মাসুম বিল্লাহ

মার্চ ১৫, ২০২৩, ০২:৩৭ পিএম


ডা. নুসরাত জাহানের পথচলা

৮ বছরের বেশি সময় ধরে সুনামের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন এ্যাস্থেটিক ফিজিশিয়ান ডা. নুসরাত জাহান। দেশের অন্যতম আস্থাশীল লেজার ট্রিটমেন্ট সেন্টার হিসেবে ‘লা মানো’ পরিচিত। বিগত পাঁচ বছর ধরে লেজার ক্লিনিক লা মানো ডার্মা এ্যান্ড লেজার মেডিক্যালে ‍‍`মেডিক্যাল পরিচালক‍‍` হিসেবে কর্মরত আছেন ডা. নুসরাত জাহান।

ত্বকের যে কোনো সমস্যার সমাধানে কাজ করছে এই লেজার ক্লিনিক। এরই মধ্যে সুপরিচিত ব্র‍্যান্ড হিসেবে নিজেদের সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখতে লা মানো ডার্মা এ্যান্ড লেজার মেডিক্যাল কাজ করে যাচ্ছে অবিরাম।

ডা. নুসরাত জাহান জানান, ‘অভিজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা লা মানো ডার্মা এ্যান্ড লেজার মেডিক্যাল পরিচালিত হচ্ছে। এছাড়া বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও অভিজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা পরিচালিত হয় লা মানো। এফডিএ অ্যাপ্রোভ বিশ্বখ্যাত জার্মান প্রযুক্তি ব্যবহার করে ব্যথাহীন, নিরাপদ, নির্ভরযোগ্য, কার্যকরী ট্রিটমেন্টের জন্য নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান। এছাড়াও ত্বকের নানা সমস্যার উপযুক্ত লেজার থেরাপি নেয়া যায় এখানে।’

ডা. নুসরাত জাহান রাজধানীর সাহাবুদ্দিন মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে ২০১৪ সালে এমবিবিএস করার পরে এমপিএইচ শেষ করেন রিপ্রোডাক্টিভ অ্যান্ড চাইল্ড হেলথ কেয়ার নিয়ে। কিন্তু রিসার্চ নিয়ে কাজ করার ব্যাপারটাতে তিনি মন বসাতে পারেননি সেভাবে। তাই ২০১৯ সাল থেকে এ্যাস্থেটিক মেডিসিন নিয়ে কাজ শুরু করেন নুসরাত জাহান।

আমেরিকান এ্যাকাডেমি অফ এ্যাস্থেটিক মেডিসিন থেকে ডিপ্লোমা শেষ করার পরে অ্যান্টি এজিং, লেজার এবং নন সার্জিকাল কসমেটিক চিকিৎসায় নিজেকে আরও পারদর্শী করতে বিভিন্ন দেশের আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে যোগদান করেন। যা এই মাধ্যমে তার অভিজ্ঞতা এবং পারদর্শীতা বাড়াতে ভূমিকা রেখেছে বলে জানিয়েছেন তিনি নিজেই।

বর্তমান সময়ে লেজার ট্রিটমেন্ট সৌন্দর্যচর্চায় ভিন্নমাত্রা এনেছে। নিজেকে আরও আকর্ষনীয় ও সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে দিনদিন লেজার ট্রিটমেন্টের চাহিদাও বাড়ছে। এছাড়াও বাংলাদেশে মানুষ লেজার ট্রিটমেন্টের উপরে আস্থা রাখছেন। তাদের সমস্যা এবং সেটার সমাধান নিয়ে আস্থা বজায় রেখে কাজ করে যেতে চান ডা. নুসরাত জাহান। সেটা মাথায় রেখেই নিরলস প্রচেষ্টা থেকে লেজার ট্রিটমেন্ট বিষয়ে কাজ করছেন তিনি।

এআরএস

Link copied!