Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

‘আমাদের মাকে নতুন সংসার দিলাম’

নিজস্ব প্রতিবেদক

অক্টোবর ৬, ২০২২, ০৪:৫১ পিএম


‘আমাদের মাকে নতুন সংসার দিলাম’

মা নাদিরা বেগমের (৫৩) বিয়ে দিয়ে মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস, মারিয়াম জ্বীম ও মেয়ের স্বামী হাসিমাখা মুখে বলেছেন, ‘আজ মাকে নতুন সংসার দিলাম।’

জান্নাতুল ও মারিয়াম দুই বোন। জান্নাতুল পরিবারের বড় মেয়ে। ছয় বছর আগে তাদের বাবা মারা যান। স্বামীর মৃত্যুর পর দুই মেয়েকে নিয়ে অসহায় হয়ে পড়েন তার মা। বড় কষ্ট করেই মানুষ করেছেন দুই মেয়েকে। 

হঠাৎ বিয়ে হয়ে যায় বড় মেয়ে জান্নাতুলের। বিয়ের পর ছোট বোনকেও নিজের কাছে নিয়ে আসে জান্নাতুল। তাদের মা হয়ে পড়েন আরও একা। কিন্তু মায়ের একাকী গল্পের অবসান ঘটাতে এগিয়ে আসে মেয়ে জান্নাতুল। 

এ বিয়েতে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন জান্নাতুল ফেরদৌসের স্বামী মাহমুদুল ইসলাম। কেবল তা–ই নয়, তিনি শাশুড়ির বিয়েতে উকিল বাবার ভূমিকায় ছিলেন।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর জান্নাতুল তার ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, আজ আমরা ২ বোন, আমার স্বামী এবং পরিবারের কয়েকজন সদস্য মিলে হাসিমুখে আমার মায়ের বিয়ে দিয়েছি।

জানা যায়, স্বামী মো. রুহুল আমিনের আত্মহত্যার পর ৫ বছর পার হয়েছে নাদিরা বেগমের (৫৩)। এরপর থেকে ২ মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস ও মারিয়াম জ্বীমকে নিয়েই কোনোরকমে সংসার চালিয়েছেন তিনি।

দুই বোন ভেবে-চিন্তে তাদের মাকে বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ২ মাস চেষ্টার পর ৩০ সেপ্টেম্বর নাদিরা বেগমের বিয়ে দিয়েছেন মেয়েরা। তারা নতুন বাবা হিসেবে পেয়েছেন ৬২ বছর বয়সী মো. হান্নান খানকে।

জান্নাতুল ফেরদৌসের স্বামী মাহমুদুল ইসলাম শাশুড়ির বিয়েতে উকিল বাবার ভূমিকায় থেকে বিয়েতে সহযোগিতা করেন। বিয়ের পর স্বামীকে নিয়ে নাদিরা বেগম মিরপুরে তার বাসায় রয়েছেন।

মায়ের বিয়ে প্রসঙ্গে মেয়ে জান্নাতুল বলেন, আমার মা সারাজীবন নিজে উপার্জন করেছেন। কারও মুখাপেক্ষী থাকেননি। আমাদের কাছে রাখা হলে মায়ের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হতো। তাই আমি, বোন ও আমার স্বামী সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর ২ মাসের মধ্যে মাকে বিয়ে দিলাম।

নাদিরা বেগমের বর্তমান স্বামী হান্নান খান হানিফ এন্টারপ্রাইজে গাড়ির দেখাশোনা করেন। ৭ বছর আগে তার স্ত্রী মারা গেছেন। তার আগের ঘরের ১ ছেলে ও ১ মেয়ে বিয়ে করে নিজেদের সংসার নিয়ে ব্যস্ত।

নতুন বিয়ে সম্পর্কে হান্নান খান বলেন, খুব কষ্ট করতে হয়েছে স্ত্রী মারা যাওয়ার পর। তাই চিন্তা করছিলাম যে, এই বয়সে আমার ১ জন সঙ্গী দরকার। তারপর এই বিয়ে। আমার ছেলে-মেয়েরা এ নিয়ে আপত্তি করেনি।

নতুন সংসার সম্পর্কে নাদিরা বেগম বলেন, আমার মেয়ে ও তার স্বামী বিয়ের যে আয়োজন করেছে তা বেশ ভালো হয়েছে।

টিএইচ

Link copied!