Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ, ২০২৪,

নির্বাচনের পর ঠিক হবে জাতীয় দলে তামিমের ভবিষ্যৎ

মো. মাসুম বিল্লাহ

নভেম্বর ২৭, ২০২৩, ০৭:৩৫ পিএম


নির্বাচনের পর ঠিক হবে জাতীয় দলে তামিমের ভবিষ্যৎ

অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে, নির্বাচক কিংবা টিম ম্যানেজম্যান্টের সিদ্ধান্ত-যে কোনো কারণেই হোক তামিম ইকবালে বিশ্বকাপ দলে ছিলেন না। এর মধ্যে তিনি কিছুদিন দেশের বাইরেও ছিলেন।

হঠাৎ করে আবার আলোচনায় তামিম। কদিন আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতও করেছেন দেশসেরা ওপেনার।

আজ সোমবার দুপুরে আবার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের গুলশানের বাসভবনে গিয়ে হাজির তামিম। বিসিবি প্রধান আর জাতীয় দলের সাবেক ওয়ানডে অধিনায়কের মধ্যে এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠকও হয়েছে।

তারপর বিসিবি প্রধান তাৎক্ষণিকভাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন। জানিয়ে দিয়েছেন, এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর ঠিক হবে জাতীয় দলে তামিমের ভবিষ্যৎ।

বিসিবি সভাপতি হিসেবে পাপন আর একবছর আর থাকার ইচ্ছে পোষণ করেছেন। পাশাপাশি তামিম ইকবাল ইস্যুতে জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও বিপিএলের পর বসে আলোচনা করে পরে জানানোর কথাও বলে দিয়েছেন বিসিবি বিগ বস।

অন্যদিকে তামিম ইকবাল বিসিবি প্রধানের বাসায় কথা না বলে বনানী ডিওএইচএসে নিজের বাসায় সাংবাদিকদের সঙ্গে বসেছেন। বিকেল ৫টার দিকে হওয়া এই আলোচনা কোনো প্রেস কনফারেন্স নয়। তামিম কোনো প্রশ্ন নেননি। আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, কোনো প্রশ্ন নয়, আমি বলে যাব আমার ভাষ্য।

সেভাবেই বলেছেন। তামিমের পুরো কথার সারমর্ম হলো, আগামী জানুয়ারি মাসে বিপিএল দিয়েই মাঠে ফিরবেন তিনি। আর তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ার সম্পর্কে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও বিপিএলের পর। বিপিএল খেলে বোর্ডের সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন দেশসেরা ওপেনার।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তামিম বলেন, ‘বিশ্বকাপের পর আমার ফিউচার কী হবে? তা আসা উচিত ছিল আগেই। আমি বরাবরই ওপেন এন্ড ক্লিয়ার।

আমি দেশের বাইরে ছিলাম। আমার সঙ্গে বোর্ড প্রেসিডেন্টের এই মিটিংটা হবার কথা ছিল কদিন আগে। কিন্তু পাপন ভাইয়ের নমিনেশন সংক্রান্ত কারণে একটু দেরি হয়েছে। তবে আজ এমন এক দিনে আমি কথা বলছি আপনাদের সাথে, যেটা টিম বাংলাদেশের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ দিন। রাত পোহালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিলেটে টেস্ট শুরু। কথা বলার জন্য এটা মোটেই ভালো দিন না। আমি সরি। দুঃখিত।’

তামিম যোগ করেন, ‘টেস্ট খেলার একদিন আগে আমার এই কথার কোনোরকম ইমপ্যাক্ট না পরুক, সেটাই কামনা। আমার একটা আন্ডারস্ট্যান্ডিং ছিল। আমি আর বিসিবি সভাপতি অনেক কিছু নিয়ে আলাপ করেছি। আমাদের অনেক খোলামেলা আলাপ হয়েছে। আমি তাকে বলেছি আমি কী করতে চাই আর কী করতে চাই না। জানুয়ারি পর্যন্ত আমাকে থামতে হচ্ছে।’

‘বিপিএল থেকেই আমি খেলা স্টার্ট করবো। আমি আমার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি। আমি বিপিএল খেলে নেই। তারপর সবার সঙ্গে কথা বলে সব বলবো।

যদিও আমি টেস্ট খেলছি না। তারপরও এখনো সেটা আমার দল। আমি সবাইকে বেস্ট উইশ জানাই’-শুভকামনা জানিয়ে শেষ করেন তামিম।

আরএস

Link copied!