community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪,

এবি ব্যাংকের জঞ্জাল মাথায় নিলো আল-আরাফাহ

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

জানুয়ারি ৩০, ২০২৪, ১২:১৮ এএম


এবি ব্যাংকের জঞ্জাল মাথায় নিলো আল-আরাফাহ

‘ভুয়া নথিতে ঋণ বিতরণ’ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক

ত্রুটিপূর্ণ জামানতের বিপরীতে বিতরণকৃত এবি ব্যাংকের ঋণ নিজেদের ব্যাংকে এনে বিপাকে পড়েছে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক। প্যানেল আইনজীবীর পরামর্শে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্যাংকটি। তবে ব্যাংকের আইনজীবীর বক্তব্য গ্রহণ করেনি কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর মাধ্যমে গ্রাহকের অর্থ ঝুঁকিতে ফেলা হয়েছে মর্মে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিদর্শনে উঠে এসেছে।

গত ২২ জানুয়ারি আমার সংবাদে প্রকাশিত ‘ভুয়া নথিতে ঋণ বিতরণ’ শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ বার্তায় আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক জানিয়েছে, “আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক পিএলসির নর্থ সাউথ রোড শাখার বিনিয়োগ গ্রাহক ‘সোহেল এন্টারপ্রাইজ’ প্রথমে এবি ব্যাংক নর্থ সাউথ রোড শাখা হতে উক্ত জমি (১.৬৮৭ শতক জমি ও তদ্বস্থিত ৬ তলা ভবন) বন্ধক দিয়ে বিনিয়োগ গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে গ্রাহকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ব্যাংকের প্যানেল আইনজীবীর নিকট থেকে আইনগত মতামত গ্রহণ করেই এবি ব্যাংকের বিনিয়োগ দায় পে-অফ করে উক্ত বিনিয়োগটি আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের নর্থ সাউথ রোড শাখায় নিয়ে আসা হয়। এ

বি ব্যাংক থেকে বন্ধক অবমুক্ত করে যথাযথ বিধিবিধান পরিপালন করে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক পিএলসি নর্থ সাউথ রোড শাখায় বন্ধক গ্রহণ করা হয়। পরবর্তীতে গ্রাহক সময়মতো বিনিয়োগ দায় পরিশোধ না করায় বিনিয়োগটি খেলাপিতে পরিণত হয় এবং উক্ত বিনিয়োগ দায়টি আদায় করার জন্য প্রচলিত আইন অনুযায়ী গ্রাহকের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে এন আই, অ্যাক্টের ১৮৮১-এর ১৩৮ ধারার বিধান মোতাবেক মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া অর্থঋণ আদালত আইন-২০০৩ এর বিধান মোতাবেক অর্থঋণ মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।”

ব্যাংকের এমন চিঠির প্রেক্ষিতে সংবাদটির প্রতিবেদকের পক্ষ থেকে পাল্টা চিঠিতে ব্যাংকের কাছে ‘ভুয়া নথির ঋণ’ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছে। যা ব্যাংকটি সুকৌশলে এড়িয়ে গিয়েছে। গতকাল রাত ৯টা পর্যন্ত সেসব প্রশ্নের উত্তর দেয়নি আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক।

মূলত ‘ভুয়া নথিতে ঋণ বিতরণ’ শীর্ষক সংবাদটিতে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের নর্থ সাউথ রোড শাখার গ্রাহক সোহেল এন্টারপ্রাইজের অনুকূলে বিতরণকৃত একাধিক ঋণের বিষয়ে জাল-জালিয়াতির তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। ব্যাংকটি কেবল একটি ঋণের বিষয়ে (১.৬৮ শতক জমি ও তদস্থিত ৬ তলা ভবন ত্রুটিপূর্ণ জামানত) বক্তব্য পাঠিয়ে দাবি করেছে, প্রকাশিত সংবাদটি অসত্য, ভিত্তিহীন, মনগড়া ও বানোয়াট তথ্যের ভিত্তিতে প্রচারিত হয়েছে; যা মোটেও সঠিক নয়। তবে ঠিক কোন তথ্যটি মিথ্যা তা স্পষ্ট করে উল্লেখ করা হয়নি। 

ব্যাংকের এমন দাবির প্রেক্ষিতে প্রতিবেদকের বক্তব্য হলো— প্রকাশিত সংবাদে প্রতিবেদকের নিজস্ব কোনো বক্তব্য বা পর্যবেক্ষণ নেই। আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট সূত্রে পাওয়া তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি করা হয়েছে। সংবাদে উল্লিখিত জালিয়াতির ঋণ সমূহের বিষয়ে যাবতীয় নথিপত্র আমার সংবাদের কাছে সংরক্ষিত আছে।
 

Link copied!