Amar Sangbad
ঢাকা মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯

উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন নিচ্ছে জলঢাকা সরকারি কলেজ

ফরহাদ ইসলাম, জলঢাকা (নীলফামারী)

ফরহাদ ইসলাম, জলঢাকা (নীলফামারী)

জুন ২৩, ২০২২, ০৮:৪৩ পিএম


উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন নিচ্ছে জলঢাকা সরকারি কলেজ

নীলফামারীর জলঢাকায় উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকেও বেতন নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। চলমান এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের সময় উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের বেতন দিতে বাধ্য করা হচ্ছে। 

তবে প্রাধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট এর নিয়ম অনুযায়ি সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো প্রকার টিউশন ফি/বেতন না নেয়ার নিয়ম থাকলেও তা মানছেন না ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের সরকারিকৃত জলঢাকা ডিগ্রি মহাবিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপবৃত্তিপ্রাপ্ত একাধিক শিক্ষার্থী জানান,‘‘আমরা গত বছর থেকে উপবৃত্তির টাকা পাচ্ছি। আমাদের কাছ থেকে কোনো প্রকার বেতন নেয়ার নিয়ম নেই। 

অধ্যক্ষ স্যারকে এ কথা জানানোর পর তিনি বলেছেন, কোন লাভ নেই। ২ হাজার ৩৯০ টাকার কম হবে না।’’ তাই পরীক্ষা দেয়ার জন্য বাধ্য হয়ে ২ হাজার ৩৯০ টাকা দিয়েই ফরম পূরণ করেছি।’’ 

কলেজের বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, এবারে জলঢাকা সরকারি কলেজে মোট ৪০০ জন পরিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করবেন। এরমধ্যে উপবৃত্তিপ্রাপ্ত দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী। বোর্ড ফি ১ হাজার ৭৭০ টাকা, ২০ টাকা মাসিক হারে কলেজের ২৪ মাসের বেতন ৪৮০ ও প্রাকটিক্যালের জন্য ১৪০ টাকাসহ মোট ২ হাজার ৩৯০ টাকা নিয়েই উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীসহ সকল এইচএসসি পরিক্ষার্থীদের ফরম পূরন করাচ্ছেন জলঢাকা সরকারি কলেজ। 
এভাবে উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মাসিক বেতন সহ বিভিন্ন খাত দেখিয়ে টাকা আদায় করায় নিম্নবিত্ত শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সংকট থেকেই যাচ্ছে। 

এ বিষয়ে জলঢাকা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মহিউদ্দিন বলেন, ‘‘উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন নেয়ার নিয়ম আছে। সরকারি কলেজ বেতন কালেকশন করে পরবর্তীতে সরকারের ফান্ডে জমা দিবে।’’ 

জলঢাকা সরকারি কলেজের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান বলেন, ‘‘তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’

প্রাধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) নাসরীন আফরোজ বলেন, ‘‘সরকারি কলেজে উপবৃত্তিপ্রাপ্তদের বেতন নেয়ার নিয়ম নেই। তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’

আমারসংবাদ/এআই