Amar Sangbad
ঢাকা শুক্রবার, ১২ আগস্ট, ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

সন্তানকে বাঁচাতে অসহায় বাবার আকুতি

রাউজান প্রতিনিধি 

রাউজান প্রতিনিধি 

জুলাই ৬, ২০২২, ০৭:৩৮ পিএম


সন্তানকে বাঁচাতে অসহায় বাবার আকুতি

পাঁচ বছরের ফুটফুটে শিশু মোহাম্মদ ওয়াহিদুল ইসলাম চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের শেখপাড়া গ্রামের সিএনজি চালক মো. তৈয়্যব আলীর ছেলে। কিন্তু সেই ওয়াহিদুল ইসলাম এখন শুয়ে আছে হাসপাতালের বেডে।

মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছে সে। এ বয়সেই তার শরীরে বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধি ব্লাড ক্যান্সার। এতে পুরো পরিবারের নেমে এসেছে অমানিশার অন্ধকার। সিএনজি চালক বাবা তার শেষ সম্বল দিয়ে চেষ্টা করছেন আদরের সন্তানকে বাঁচানোর।

কিন্তু নিষ্পাপ শিশুটিকে বাঁচাতে প্রয়োজন প্রায় চার লক্ষ টাকা।  আর এ টাকা জোগাড় করতে গিয়ে পরিবারটি হয়ে পড়েছে দিশেহারা। উপায়ন্তর না পেয়ে সমাজের বিত্তবান ও সামর্থ্যবানদের সাহায্য কামনা করেছেন ওয়াহিদুল ইসলামের বাবা তৈয়্যব আলী। 

ওয়াহিদুল ইসলামের বাবা তৈয়্যব আলী বলেন, চিকিৎসাধীন রয়েছে ওয়াহিদুল ইসলাম। ডাক্তার জানিয়েছেন, এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে শিশুটির শরীরে ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে। বর্তমানে তা প্রথম ধাপে রয়েছে,  যা চিকিৎসা করলে সুস্থ হওয়া সম্ভব। 

তবে চিকিৎসাটি ব্যয়বহুল বাঁচার সম্ভাবনা রয়েছে তার। আমার একখণ্ড জমিও নেই যে তা বিক্রি করে ছেলের চিকিৎসা চালাব।ছেলের চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানরা যদি এগিয়ে আসেন তাহলে আমার ছেলের মুখে হাসি ফুটবে।সিএনজি চালক বাবা তৈয়্যব আলী প্রায় সপ্তাহখানেক ধরে ধার-দেনা করে ছেলের চিকিৎসা খরচ চালিয়ে আসছেন। একদিন সিএনজি না চালালে ঘরে খাবার জোটে না তাদের। সন্তানের অসুস্থতার জন্য সিএনজিও চালাতে পারছেন না তিনি। নেই কোনো জমি-জমা। 

মাথায় রয়েছে ছেলের চিকিৎসার খরচ ও ঋণের বোঝা। বর্তমানে শিশু ওয়াহিদুল ইসলাম চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮নং ওয়ার্ডের ৩নং ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে।ওয়াহিদুলের চিকিৎসায় বিত্তবানদের এগিয়ে আসার অনুরোধ জানিয়েছেন স্থানীয় গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ বাদশা আলমগীর ইউনিট শাখা ও শেখপাড়া ইউনিট শাখার নেতৃবৃন্দরা।