Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

মিরসরাইয়ে বিএনপি কর্মীদের গাড়ি বহরে হামলা

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

আগস্ট ৩১, ২০২২, ০৯:০৩ পিএম


মিরসরাইয়ে বিএনপি কর্মীদের গাড়ি বহরে হামলা

মিরসরাইয়ে বিএনপি নেতাদের বহন করা দুটি গাড়িতে অতর্কিত হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে মিরসরাই উপজেলা বিএনপির ১২ নেতাকর্মী মারাত্মক আহত হয়েছে। আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার (৩১ আগস্ট) সকালে  উপজেলার বারৈয়ারহাট ও নিজামপুর কলেজ এলাকায় দুটি পৃথক হামলার ঘটনা ঘটে।

মিরসরাই উপজেলা বিএনপির তথ্য সূত্রে জানাযায়, বিএনপির ৪৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে একটি সমাবেশে মিরসরাইয়ের বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা চট্টগ্রাম যাচ্ছিল। করের হাট ইউনিয়ন থেকে নেতাকর্মীদের বহন করা একটি গাড়ি বারৈয়ারহাট রেল ক্রসিং এলাকায়  আসলে সরকার দলিয় নেতাকর্মীরা অতর্কিত হামলা করে। এছাড়া ১৪ নং হাইতকান্দি ইউনিয়ন থেকে একটি গাড়ি নিজামপুর কলেজ এলাকা অতিক্রম করার শিকার হয়। এছাড়া আরো কয়েকটি পৃথক হামলায় বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী মারাত্মক আহত হয়। আহতরা হলেন উপজেলা বিএনপির সদস্য ও করের হাট ইউনিয়নের সবেক সভাপতি সিরাজুল হক সিরাজ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক শরীয়তউল্লাহ, ১৪ নং ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা শান্ত বড়ুয়া সাব্বির, ৭ নং ইউনিয়ন যুবদল সদস্য সচিব দিদার, ছাত্রদল নেতা একরাম, ৪ নং ইউনিয়ন যুবদল নেতা সালাউদ্দিন রুপম, ১৬ নং ইউনিয়ন যুবদল নেতা আব্দুস সালাম, করেরহাট ইউনিয়ন ৫ নং ওয়ার্ড বিএনপির সহ সভাপতি মিয়া সওদাগর, একই ওয়ার্ড যুবদল নেতা কামাল উদ্দিন, ৪ নং ওয়ার্ড যুবদল সভাপতি আব্দুল মতিন, ৫ নং ওয়ার্ড বিএনপি নেতা বাবুল চৌধুরী, ৪ নং ওয়ার্ড যুবদল কর্মী সাইফুল ইসলামসহ আরো অনেকে।

মিরসরাই উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক গাজি নিজাম উদ্দিন জানান, বিএনপি নেতা কর্মীরা গত ২৬ আগস্ট শুক্রবারের আগ পর্যন্ত বাড়ি ঘরে শান্তিতেই বসবাস করে আসছিল। কিন্তু ২৬ আগস্ট শুক্রবারে উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে বিক্ষোভ  মিছিল করা হয়। সেই বিক্ষোভ মিছিলের পর থেকে বিএনপি নেতা কর্মীরা আর বাড়ি ঘরে থাকতে পারছে না। বিক্ষোভ মিছিলে যারা গিয়েছে যারা বিএনপি করে তাদের প্রত্যেকের ঘরে ঘরে গিয়ে মারধর করা হচ্ছে। বাড়ি,ঘরে, বাজারে যেখানে বিএনপি কর্মীদের পাচ্ছে সেখানে হামলা করা হচ্ছে। থানা পুলিশ কে জানালেও কোন সহযোগীতা পাওয়া যাচ্ছে না। জীবনের নিরাপত্তার কথা ভেবে কোথাও মামলাও করা সম্ভব হচ্ছে না। মামলা করলে হয়তো আরো বড় ধরণের হামলার শিকার হতে হবে সেই ভয়ে।

মিরসরাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক শাহীদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, গত শুক্রবারের বিক্ষোভ মিছিল কেন্দ্রীয় নির্দেশ অমান্য করে করা হয়েছে। সেই বিক্ষোভ মিছিলের পর থেকে নেতা কর্মীরা ঘরে থাকতে পারছেনা। সেই ধারাবাহিকতায় ৩১ আগস্ট দলের ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে সমাবেশে অংশ গ্রহণ করার জন্য নেতা কর্মীরা যাত্রা করলে তাদের উপর অতর্কিত হামলা করা হয়। এতে বেশ কয়েক জন নেতাকর্মী মারাত্মক আহত হয়ে চমেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

উত্তরজেলা বিএনপির ৩নং যুগ্মআহ্বায়ক নুরুল আমিন বলেন, সরকার দলিয় নেতাকর্মীরা পাগলা কুকুরের মতো হয়ে গিয়েছে। তারা বিএনপির নেতাকর্মীদের দেখলেই হামলা করছে। বিএনপি নেতাকর্মীরা বাড়ি ঘরে থাকতে পারছেনা। এটা আওয়ামী রাজনীতির দেউলিয়াত্তের লক্ষণ ছাড়া আর কিছুই না। তারা চাচ্ছে হামলা মামলা করে বিএনপি নেতাদের রাজপথ থেকে তাড়িয়ে দিতে। কিন্তু বিএনপি নেতা কর্মীরা জীবন দিবে তবু রাজপথ ছেড়ে যাবে না।

এসএম

Link copied!