community-bank-bangladesh
Amar Sangbad
ঢাকা শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪,

মোবাইল ধীরে চার্জ হয়, যেভাবে গতি বাড়বে জেনে নিন

আমার সংবাদ ডেস্ক:

আমার সংবাদ ডেস্ক:

জুন ৯, ২০২৪, ০৫:৫৪ পিএম


মোবাইল ধীরে চার্জ হয়, যেভাবে গতি বাড়বে জেনে নিন

মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে গিয়ে অনেকেই নিজের হাতের স্মার্টফোন নিয়ে ব্যাপক দুশ্চিন্তায় পড়েন। বিশেষ করে চার্জ দিতে গিয়ে নানা সমস্যায় পড়ছে। এর সমাধানের জন্য অনেকে ব্যাটারি পরিবর্তন থেকে শুরু করে ফোন পর্যন্ত পরিবর্তন করে ফেলেন। কিন্তু নতুন ফোনেও কয়েক মাস ব্যবহারের পর এই সমস্যা হতে পারে।

এছাড়া স্মার্টফোন একটু পুরোনো হলেই নানা সমস্যা দেখা দেয়। যেমন- ফোন গরম হয়ে যাওয়া, গতি ধীর হওয়া, হ্যাং হওয়া, চার্জ হতে বেশি সময় নেয়া সহ নানা সমস্যা। এর মধ্যে ফোনে চার্জ হতে সময় নেয়া অনেক বড় সমস্যা বটে। তবে কয়েকটা বিষয় লক্ষ্য রাখলে চার্জ ধীরে হওয়ার থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। প্রযুক্তি ভিত্তিক ওয়েবসাইট মেইক ইউজ অব এর প্রতিবেদন থেকে টিপসগুলো সম্পর্কে জানা যায়।

স্মার্টফোন ধীরে চার্জ হলে যা করবেন:

বিভিন্ন কারণে স্মার্টফোন ধীরে চার্জ হয়। যদিও বর্তমানে অনেক ধরণের ফোনে ফার্স্ট চার্জার দিয়ে থাকে। তবে যেসব মোবাইল ফোনের সাথে আপডেট এই চার্জারগুলো দেয়া হয় না সেই সব ফোনের জন্য ব্যবহারকারীকে দ্রুত চার্জের জন্য কিছু বিষয় অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে। এতে যেমন মোবাইল ফোনের ব্যাটারি হেল্থ ভালো থাকবে তেমনি চার্জের গতি বাড়বে।

ফোনের কভার ব্যবহার:

অনেকেই ফোনে কাভার ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু ফোন চার্জ দেয়ার আগে এই কাভার ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে। গরমকালে চার্জিংয়ের ফলে স্মার্টফোনে স্বাভাবিকের তুলনায় বেশ তাপ উৎপন্ন হয়। পাশাপাশি ফোনে যদি কভার থাকে তাহলে ব্যাটারি হিট হওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়। তাই কভার সরিয়ে ফোন চার্জ করুন।

চার্জার:

স্মার্টফোন কেনার সময় অনেক কোম্পানি চার্জার দিয়ে থাকে। তাই সব সময় সেই চার্জার ব্যবহার করা উচিত। বাজারের অন্যান্য চার্জার ব্যবহার করলে ব্যাটারির সমস্যা দেখা দিতে পারে। এছাড়া বর্তমানে অনেক কোম্পানি ফোনের সাথে চার্জার দেয় না। তবে ভালো কিছু কোম্পানি চার্জার তৈরি করে থাকে, সেগুলো যাচাই করে ব্যবহার করা উত্তম। এতে ফোনের চার্জ দ্রুত হবে। সেই সঙ্গে ফোন দীর্ঘদিন ভালো থাকবে।

ওয়্যারলেস চার্জার:

ওয়্যারলেস চার্জিং করার সুবিধা থাকে তাহলে তা এড়িয়ে চলুন। কারণ ওয়্যারলেস চার্জিংয়েও প্রচুর পরিমাণে তাপ উৎপন্ন হয়। এতে ফোনের ব্যাটারির সমস্যা হতে পারে। তাছাড়া ফোন দেরিতে চার্জ হওয়ার এটি একটি কারণ।

ফোন ব্যবহার:

অনেকেই ফোন চার্জে দিয়ে ব্যবহার করে থাকে। অনেকেই ফোন চার্জে দিয়ে গেম খেলেন, সোশ্যাল মিডিয়া স্ক্রোল করেন। এতে প্রসেসর ও ব্যাটারির উপর অত্যধিক পরিমাণে চাপ তৈরি হয়। যার ফলে গতি কমে যায় চার্জিংয়ের। এছাড়া এটি একটি মারাত্বক দুর্ঘটনারও কারণ হয়ে থাকে।

ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপস:

অ্যাপ ছাড়া কোনো কিছুই চলে না। কিছু অ্যাপ উচ্চ ব্যাটারির ব্যবহার দেখাতে পারে কারণ আপনি সেগুলি প্রায়ই ব্যবহার করে থাকেন। এরকম অ্যাপ্লিকেশনগুলো খুঁজে বের করুন আপনি কম ব্যবহার করেন কিন্তু ব্যাটারির ব্যবহার বেশি। ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক বেশি অ্যাপ্লিকেশন চলার ফলে শুধু আপনার ফোনের চার্জের হার ধীর হয়ে যায় না বরং আপনার ফোনের RAM ও অনেকটা খেয়ে ফেলে। এছাড়াও ফোরগ্রাউন্ডে সক্রিয়ভাবে অনেকগুলি অ্যাপ চলার কারণেও ধীর গতির সৃষ্টি হতে পারে।

স্মার্টফোন চার্জে দেওয়ার সময় বিবেচনা:

অনেকেই মোবাইল ফোন যখন তখন চার্জে দিয়ে রাখে। কিন্তু পার্সেন্টিস দেখে ফোন চার্জে দেয়া উচিত। এক্ষেত্রে স্মার্টফোনের ব্যাটারি ২০ এর নিচে নেমে গেলে তবেই চার্জে দিতে পারেন। পাশাপাশি স্মার্টফোন ৯০ শতাংশ চার্জ হয়ে গেলে চার্জিং বন্ধ করে দিন। এই প্রক্রিয়া সব সময় অনুসরণ করা উচিত। বারবার যদি কিছুক্ষণ চার্জে বসিয়ে ফোন ঘাঁটা শুরু করেন তাহলে ব্যাটারি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

চার্জারের ধরণ:

বাজারে অনেক ধরণের চার্জার পাওয়া যায়। সব সময় ইউএসবি টাইপ সি চার্জার ব্যবহার করুন। তবে সবচেয়ে জরুরি কোন ওয়াটের চার্জার ব্যবহার করছেন তা জানা। আপনার ফোনের বক্সে বা স্পেসিফিকেশনে চার্জিং ওয়াট লেখা থাকে। তার কম ক্ষমতা সম্পন্ন চার্জার দিয়ে চার্জ করলে গতি ক্রমশ কমে যাবে।

বিআরইউ

Link copied!