Amar Sangbad
ঢাকা বুধবার, ২৯ মে, ২০২৪,

চলমান পরিস্থিতি মোকাবিলায়

শক্তি বাড়াচ্ছে আওয়ামী লীগ

সৈয়দ সাইফুল ইসলাম

মে ৩১, ২০২৩, ১১:৫২ পিএম


শক্তি বাড়াচ্ছে আওয়ামী লীগ

দলকে আরও শক্তিশালী করতে কাজ করছি

—ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, আ.লীগ

বিরোধীদের রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করা হবে

—অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম

সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, আ.লীগ

টানা তিনবার ক্ষমতায় থাকা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সামনে বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জ। নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠা দাবিতে বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর আন্দোলন মোকাবিলা, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠান, নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে ক্ষুব্ধ নাগরিকদের সন্তুষ্ট রাখতে সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনা ও দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ের নিয়ে আসা, ক্ষমতার মেয়াদের শেষ সময়ে এসে অর্থনৈতিক পরিস্থিতির উন্নতি ও প্রশাসনে শৃঙ্খলা ধরে রাখা ক্ষমতাসীনদের জন্য চ্যালেঞ্জ। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এ চ্যালেঞ্জগুলোর সাথে যুক্ত হয়েছে সম্প্রতি ঘোষিত মার্কিন ভিসানীতি। এই ভিসানীতিকে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ খুব একটা আমলে না নিলেও এর নেতিবাচক দিক পর্যবেক্ষণ করছে দলটি, থাকছে সতর্কও। সামগ্রিকভাবে এসব পরিস্থিতি মোকাবিলায় দলটি নিজেদের অভ্যন্তরীণ শক্তি ও সামর্থ্য বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে। আওয়ামী লীগ মনে করছে, সংগঠন শক্তিশালী থাকলে পরিস্থিতি মোকাবিলা সহজ। জাতীয় নির্বাচনের দিকে সময় যত অগ্রসর হচ্ছে— রাজনৈতিক অঙ্গন ততটাই উত্তপ্ত হচ্ছে। বিরোধী দলগুলোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা, আর সরকারি দল তা মোকাবিলা করতে গেলে দেশের স্বাভাবিক পরিস্থিতি থাকছে না। কর্মসূচি-পালটা কর্মসূচি চলতে থাকলে সাধারণ মানুষের মধ্যে একটি শঙ্কা কাজ করে। ইতোমধ্যে বিরোধী দলগুলোর পক্ষ থেকে ‘নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকার প্রতিষ্ঠার একদফা আন্দোলনের হুঁশিয়ারি’ জানানো হয়েছে। এর আর পালটা জবাব হিসেবে প্রস্তুত রয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগও। জাতীয় নির্বাচনের আগে শুধু বিরোধী দল মোকাবিলাই নয়, দলটির সামনে থাকা সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া দলের অভ্যন্তরীণ শক্তি ও সামর্থ্য বৃদ্ধি করতে সক্রিয় রয়েছে শীর্ষ নেতৃত্ব। দলকে শক্তিশালী করতে ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় সংগঠনের পক্ষ থেকে একাধিকবার নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। চলছে দফায় দফায় বৈঠকও।

সর্বশেষ গত ২৮ মে বিকেলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর সঙ্গে ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এক যৌথসভায় মিলিত হন। ওই সভায় দেশের চলমান পরিস্থিতিতে করণীয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। নির্বাচনকে সামনে রেখে দলটির কি কি পদক্ষেপ নেয়া জরুরি এবং বিরোধী দলকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলায় পদক্ষেপগুলো নিয়ে আলোচনা করেন সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যরা। ঢাকা মহানগর উত্তর দক্ষিণ ও দলটির সহযোগী সংগঠনের নেতাদের কাছ থেকেও করণীয় সম্পর্কে পরামর্শ নেন কেন্দ্রীয় নেতারা। যৌথসভা শেষে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। ওই সময় তিনি বলেন, কোনো নিষেধাজ্ঞায় নির্বাচন বন্ধ হবে না। নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আমাদের কোনো মাথাব্যথা নেই। বিদেশিরা আমাদের বন্ধু, প্রভু নয়। বিএনপি অসুস্থ রাজনীতি করে। আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে বিএনপির পরাজয় হবে। তিনি বলেন, দেশের সংবিধানে যেহেতু তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ব্যাপার উল্লেখ নেই তাই এ বিষয়ে কথা বললে বিএনপি ভিসানীতিতে আক্রান্ত হবে। এখন যারা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে বাধা হয়ে দাঁড়াবে তাদের ব্যাপারে আমেরিকার পদক্ষেপ কী হবে, সেটি দেখার বিষয়। আওয়ামী লীগ অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চায়। কিন্তু নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি। আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ডা. মোস্তাফা জালাল মহিউদ্দিন বলেন, ‘আমাদের দল শক্তিশালী, আমরা আমাদের দলটিকে আরও শক্তিশালী করার জন্য কাজ করছি।’ এক প্রশ্নে জবাবে দৈনিক আমার সংবাদের এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘বিএনপি মাঠে নামলে সেটি আমরা দেখব, আগে দেখি তারা কীভাবে মাঠে নামে।’ তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি যদি রাজপথে তৎপরতা দেখায় তাহলে আমরা রাজনৈতিক পদক্ষেপ নেবো।’ আওয়ামী লীগ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে বলেও জানান  ডা. মোস্তাফা জালাল মহিউদ্দিন। দলটির সভাপতিমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম আমার সংবাদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘বিরোধীদলগুলো তাদের দাবি আদায়ে আন্দোলন করবে, এটি তাদের রাজনৈতিক অধিকার। আমরা চাই যদি তারা নিয়মের মধ্য থেকে আন্দোলন করেন তাহলে তো কোনো সমস্যা নেই, কিন্তু আন্দোলনের নামে যদি তারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে, অনিয়ম করে, তাহলে বিরোধী দলগুলোকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত আওয়ামী লীগ।’

Link copied!