Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ, ২০২৪,

এলজিইডির ‘স্থানীয় সরকার কোভিড রেসপন্স অ্যান্ড রিকভারি প্রজেক্ট‍‍`র প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষণ

মো. মাসুম বিল্লাহ

ডিসেম্বর ২, ২০২৩, ০৩:২৭ পিএম


এলজিইডির ‘স্থানীয় সরকার কোভিড রেসপন্স অ্যান্ড রিকভারি প্রজেক্ট‍‍`র প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষণ

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর ”এলজিসিআরআরপি” প্রকল্পের শ্রমঘন গণপূর্ত কাজ (Labor Intensives Public Works-LIPW) এবং কোভিড-১৯ রেসপন্স গ্রান্ট ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত রিজিওনাল মিউনিসিপ্যাল সাপোর্ট ইউনিটের কর্মকর্তা ও পরামর্শকদের জন্য দুই দিন ব্যাপি প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষণ কোর্স শুরু হয়েছে।

শনিবার (০২ ডিসেম্বর) এলজিইডির সদর দপ্তরের কনফারেন্স রুমে এ প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শেখ মুজাক্কা জাহের, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (নগর ব্যবস্থাপনা), এলজিইডি। বিশেষ অতিথি ইঞ্জিনিয়ার মো. সোহরাব আলী, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, নগর পরিকল্পনা, এলজিইডি। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শান্তনু লাহিড়ী, পরামর্শক, বিশ্বব্যাংক।

অনুষ্ঠানের সার্বিক সমন্বয় করেন, নাজমুস সাদাত মো. জিল্লুর রহমান, প্রকল্প পরিচালক, এলজিসিআরআরপি, এলজিইডি। রোববার এ প্রশিক্ষণ সমাপ্ত হবে।

প্রশিক্ষণে বক্তারা বলেন, বিশ্বব্যাপি কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস মহামারী পৃথিবীর সমস্ত জনপদের মতো বাংলাদেশেও আঘাত হানে। কোভিড-১৯ মহামারিতে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশও কোভিডের বিধি-নিষেধ ও লক-ডাউনে বিপর্যস্ত হয়। বিশেষত এই ভাইরাস বাংলাদেশে দীর্ঘসময় অবস্থানের ফলে নিরাপদ জীবন জীবিকার তাগিদে শহরে বসবাসরত প্রায় ২৭ মিলিয়ন মানুষ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেই সঙ্গে কর্মহীন হয়ে পড়ে লাখো উপার্জনকারী ব্যক্তি। মহামারি কোভিডের ভয়াবহতার ফলে হতদরিদ্র মানুষের আয় যেমন কমে যায় তেমনি নগর ব্যবস্থাপনায় সক্ষমতার সীমাবদ্ধতার ফলে জনগণের মৌলিক পরিষেবা কার্যক্রম ব্যাহত হওয়া সত্তেও নগর স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান যেমন- পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশন সমূহের জনপ্রতিনিধিগণ তাদের নাগরিকদের সার্বিক সহায়তা প্রদানে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশে ভবিষ্যতে এরূপ মহামারি, প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ যে কোনো প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলার লক্ষ্যে বিশ্ব ব্যাংকের ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহায়তায় বাংলাদেশের ১০টি মহানগর ও ৩২৯টি পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবার পরিধি বৃদ্ধি, অবকাঠামোর মানোন্নয়নের মাধ্যমে স্থানীয় অর্থনৈতিক কর্মকান্ডকে গতিশীল করা, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত অভিঘাত, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও ভবিষ্যতে যে কোনো মহামারির প্রাদুর্ভাব মোকাবেলার জন্য এলজিইডি গত এপ্রিল ২০২২ সালে “স্থানীয় সরকার কোভিড-১৯ রেসপন্স অ্যান্ড রিকভারি” (এলজিসিআরআরপি) প্রকল্পটি গ্রহণ করে। কোভিড-১৯ মহামারির সময় নানারকম বিধি-নিষেধ ও লক-ডাউনের ফলে অনানুষ্ঠানিক খাতে ক্ষতিগ্রস্ত হতদরিদ্র এবং সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠির জীবিকা পুনরুদ্ধারের জন্য মেশিন ব্যবহারের পরিবর্তে পৌরসভা/নগর এলাকায় বসবাসরত দক্ষ, আধা-দক্ষ ও অদক্ষ সুবিধাবঞ্চিত দিন মজুরদের মাধ্যমে “শ্রম-ঘন গণপূর্ত” কার্যক্রম বাস্তবায়নের সুযোগ রাখা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, প্রকল্পের মোট স্কিমের মধ্যে “শ্রম-ঘন গণপূর্ত” কাজের স্কিমের শতকরা আনুপাতিক হার ২৫ ভাগ। এছাড়াও নগর স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ কর্তৃক গৃহীত স্কিমের আওতায় “শ্রম-ঘন গণপূর্ত” কার্যক্রমের মধ্যে ১০ হাজার দুস্থ নারীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা রেখে এই নীতিমালা “LIPW Guideline” প্রণয়ন করা হয়েছে। যেকোনো প্রকল্পের অবকাঠামো উন্নয়নের সফলতার প্রাণশক্তি হচ্ছে, প্রজ্ঞাবান নেতৃত্ব ও দক্ষ জনবল এবং প্রকল্পের কার্যক্রমের সাথে যুক্ত সকলের আন্তরিক প্রচেষ্টা। প্রশিক্ষণ ছাড়া দক্ষ জনবল ও প্রজ্ঞাবান নেতৃত্ব তৈরি করা সম্ভব নয়। তার আলোকেই এই “শ্রম-ঘন গণপূর্ত” কার্যক্রমের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে এই প্রকল্পে।

এআরএস

Link copied!