Amar Sangbad
ঢাকা রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০২৪,

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সদস্য সম্মেলন

‘যুগপৎ গণআন্দোলনে’ সকল রাজনৈতিক জোটকে সাথে চায় জামায়াত

আমার সংবাদ ধর্ম ডেস্ক

সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২, ০৩:৫৮ পিএম


‘যুগপৎ গণআন্দোলনে’ সকল রাজনৈতিক জোটকে সাথে চায় জামায়াত

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি ডা: সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের বলেছেন, বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকার জনগনের উপর জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসে আছে। জামায়াত, বিএনপিসহ গণতন্ত্রকামী ডান বাম, জোট সকলকে সাথে নিয়ে যুগপৎ দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। এর মাধ্যমে সরকারের পতন ঘটিয়ে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জাতিকে সঠিক পথে এগিয়ে নিতে হবে।

তিনি বলেন, সংগ্রাম করে জাতিকে মুক্ত করার মহান দায়িত্ব পালনে আগামী দিনে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালনে জামায়াতের সদস্যদের এগিয়ে আসতে হবে। তিনি উল্লেখ করেন, এই সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন নয়।

শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে এক ভার্চুয়াল সদস্য (রুকন) সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।  

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী প্রচার সম্পাদক আব্দুল্লাহ সাইফ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি এই তথ্য জানায় জামায়াত। তবে সম্মেলনটি কোথায় অনুষ্ঠিত হয়েছে সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি বিজ্ঞপ্তিতে।

কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এটিএম মাসুম, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা আবদুল হালিম, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য এডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দ।

ডা: তাহের বলেন, দুনিয়াব্যাপী জুলুম নিপীড়নের মধ্য দিয়ে সত্য প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম চলছে। এই সংগ্রামের জন্য সব সময় একদল ডেডিকেটেড, একনিষ্ট ও ত্যাগী মানুষের প্রয়োজন। যারা সব কাজে আল্লাহ ও তার রাসূল (সা:) এর সন্তুষ্টিকে প্রাধান্য দিবে। বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে জামায়াতে ইসলামীর সদস্যরাই সেই ত্যাগের জন্য নিজেদের উপস্থাপন করছেন।

তিনি বলেন, ইসলামী আন্দোলনের পূর্নতার জন্য ঈমান, ইসলাম, হিজরত, জিহাদ ফি সাবিলিল্লাহ, শাহাদাত প্রয়োজন। জামায়াতে ইসলামী এমন একটি কাফেলা, যারা সবগুলোর নজরানা পেশ করতে সক্ষম হয়েছে।

মাওলানা এটিএম মাসুম বলেন, আমরা এই দেশকে আল্লাহ ভীরু সমাজে পরিণত করতে চাই। কিন্তু এই পথ কর্ন্টকাকীর্ণ, বাধা আসবেই, প্রতিবন্ধকতা আসবেই, তা মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি উল্লেখ করেন,  সকল কাজে আল্লাহর সন্তুষ্টিকে গুরুত্ব দিতে হবে। আমলে অকৃত্রিমতা থাকতে হবে।

মাওলানা আবদুল হালিম বলেন, ইসলামী আন্দোলনের জন্য কোন ব্যক্তি অপরিহার্য নয়। ব্যক্তির নিজের মুক্তি ও সফলতার জন্য ইসলামী আন্দোলন করা অপরিহার্য। ঈমানের দাবী হিসেবে আমৃত্যু আল্লাহর পথে সংগ্রাম করে যেতে হবে। তিনি বর্তমান সময়ের প্রয়োজনে রাজধানীর সদস্যদের যথাযথ ভূমিকা পালনে নিজেদের প্রস্তুত করার আহবান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা, লুটপাট, হাজার হাজার কোটি টাকা পাচারের মাধ্যমে সরকার দেশকে দেউলিয়াত্বের দিকে ঠেলে দিয়েছে। তেল, গ্যাস, বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি,  নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। দেশের রাজনীতি অচল করে দিয়ে, মানুষের ভোটাধিকারকে পদদলিত করে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় রয়েছে। বিরোধী মতের কারো কথা বলার সুযোগ নেই। দেশকে বিরোধী দল শূন্য করতে গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা ভেঙ্গে চুরমার করে দিয়েছে। ১৫০টি আসনে ইভিএম এ নির্বাচন আয়োজনের মধ্য দিয়ে আজীবন ক্ষমতায় থাকার স্বপ্ন দেখছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশন তারই তল্পিবাহক হিসেবে কাজ করছে। এইভাবে চলতে দেয়া যায় না। 

তিনি বলেন, এই অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের কোন বিকল্প নেই। জনগনের পছন্দের সরকার যেন ক্ষমতায় আসতে পারে, দেশে যেন রাজনীতির সুস্থ ধারা গড়ে উঠতে পারে, জনগনের দাবী পূরণে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালনে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। এর মাধ্যমে জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসা সরকার যতই শক্তিশালী হউক না কেন, তার পতন ঘটানো সম্ভব হবে।

ইএফ

Link copied!