Amar Sangbad
ঢাকা শনিবার, ০২ মার্চ, ২০২৪,

এক ম্যাচে তিন হ্যাটট্রিক

ভুটানের জালে ভারতের গোল উৎসব

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩, ০৭:৩৩ পিএম


ভুটানের জালে ভারতের গোল উৎসব

অনূর্ধ্ব-২০ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচেই ভুটানকে ১২-০ গোলে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে ভারত। এক ম্যাচেই হ্যাটট্রিকের দেখা পেলেন তিনজন। নেহা একাই করলেন চার গোল। গতকাল দুপুরে কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে দুই দল। 

তিন মিনিটের মাথায় অফসাইডের ফাঁদে পড়ে গোলের সুযোগ হাতছাড়া করে ভুটান। দুই মিনিট পর পায়ে আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়েন ভুটানের সোনাম গাকি। তার বদলি নামেন ফুনতসো ছোডেন। ম্যাচের ১২ মিনিটে সুনিতা মুন্ডার জোরাল শট ডানহাতে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান ভুটানি গোলরক্ষক এবং অধিনায়ক নরবু জাংমো। সাত মিনিট পর জাংমো বল ক্লিয়ার করতে সামনে এগিয়ে আসায় বিপদ ঘটতে নিয়েছিল। ফাঁকা জাল পেয়েও অবশ্য জালে বল জড়াতে পারেননি নিতু লিন্ডা। খেলার ২১ মিনিটে বক্সের ভেতর থেকে সুমিতা কুমারীর কিক ঝাঁপিয়ে ঠেকান ভুটান গোলরক্ষক। 

২৫ মিনিটে শুভাংগি সিংয়ের শট বাঁ-পায়ে সামনে শুয়ে পড়ে দারুণ দক্ষতায় ঠেকান জাংমো। কাজলের পাসে বল পেয়ে গোলমুখে থাকা অপর্ণা নারজারির ডানপায়ের ফিনিশিংয়ে ২৯ মিনিটে লিড পায় ভারত। পরের মিনিটে বদলি হিসেবে নামেন নেহা। তাতে ভারতের আক্রমণের ধার বেড়ে যায়। ভুটান অধিনায়ক পোস্টের সামনে গ্লাভস হাতে প্রতিপক্ষের একের পর এক আক্রমণ ঠেকাতে থাকলেও ৩৭ মিনিটে আবারও গোল হজম করেন। জাংমোকে একা পেয়ে শট নিয়েছিলেন অপর্ণা। 

ভুটানের এক ফূটবলার বল বিপদমুক্ত করার চেষ্টা করেন, কিন্তু গোললাইনের কাছে থাকা নেহা বল জালে জড়িয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। বিরতির আগে আরও দুই গোল পায় ভারত। নেহার পাসে বল পেয়ে গোলরক্ষকের সামনে এগিয়ে আসার সুযোগে নিতু লিন্ডা লক্ষ্যভেদ করেন। যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে বাঁ-প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে উঠে ভারত গোলের হালি পূর্ণ করেন। দ্বিতীয়ার্ধে চলতে থাকে ভারতের গোল উৎসব। ৫০ মিনিটে নেহার পাসে নিশানাভেদ করেন আনিতা কুমারী। মিনিট পাঁচেক পর নেহা পেয়ে যান হ্যাটট্রিক।

 এরপর ৬১ এবং ৬৩ মিনিটে আরেক বদলি লিন্ডা কম সেরটো গোলের দেখা পান। ছয় মিনিট পর আনিতা কুমারী জালে বল জড়ান। ৭৫ মিনিটে লিন্ডা এবং ৭৮ মিনিটে আনিতাও হ্যাটট্রিক পেয়ে যান। নেহা ৯০ মিনিটে গোলের হালি পূর্ণ করেন। গত বছর অনূর্ধ্ব-১৮ বছর বয়সীদের নিয়ে হওয়া এই প্রতিযোগিতায় শিরোপা জিতেছিল ভারত। ভুটানকে উড়িয়ে শুরু করার পর মুকুট ধরে রাখার আশাবাদ জানালেন রকি। তিনি বলেন, লক্ষ্য তো ট্রফি নিয়ে ঘরে ফেরা। দেখা যাক। গতবার রাউন্ড রবিন লিগ শেষে বাংলাদেশের সমান পয়েন্ট ছিল ভারতের। 

কিন্তু গোল পার্থক্যে এগিয়ে থাকায় সেরা হয়েছিল তারা। এবার রাউন্ড রবিন লিগ শেষে সবচেয়ে বেশি পয়েন্ট পাওয়া দুই দল নিয়ে হবে ফাইনাল। বাড়ির উঠানে হওয়া এবারের প্রতিযোগিতায় শিরোপা জয়ের লক্ষ্য বাংলাদেশেরও। বিশেষ করে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে জাতীয় দলের সাফল্যের কারণে বয়সভিত্তিক এই প্রতিযোগিতা নিয়েও দলের চাওয়া আকাশ-ছোঁয়া। ভারত কোচ ময়মল রকিরও তা জানা। তাইতো ভারতীয় এই কোচ বলেছেন, আমি অবশ্যই ওদের লাইনআপ দেখেছি, খেলোয়াড়দের দেখেছি। 

অবশ্যই বলব, মেয়েদের ফুটবলে গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশ ভালো করছে। আমাদের পরের ম্যাচ ওদের বিপক্ষে; এটা আমাদের জন্য সহজ ম্যাচ হবে না। পরের ম্যাচে আমরা শতভাগ দিব। দেখা যাক কী ফল হয়। রোববার কমলাপুরেই মুখোমুখি হবে ভারত ও বাংলাদেশ।

এবি

Link copied!